২০০৬ বিশ্বকাপ জয়ীদের নতুন চ্যালেঞ্জ

করোনাভাইরাস বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় আতঙ্কের নাম। এর মহামারীতে পুরো বিশ্বকেই স্থবির করে দিয়েছে। আর সম্প্রতিতে ইতালিতে সবচেয়ে বেশি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে এ ভাইরাস। এ সমস্যা থেকে উত্তরণের জন্য দেশকে সহায়তা করতে এবার একত্রিত হয়েছেন ২০০৬ বিশ্বকাপ জয়ী ইতালিয়ান ফুটবলাররা। ইতালিয়ান রেড ক্রসের জন্য তহবিল গঠন করছেন বিশ্বজয়ী এ তারকারা।
ছবি: এএফপি

করোনাভাইরাস বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় আতঙ্কের নাম। এর মহামারী পুরো বিশ্বকেই স্থবির করে দিয়েছে। সম্প্রতি ইতালিতে সবচেয়ে বেশি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে এ ভাইরাস। এ সমস্যা থেকে উত্তরণের জন্য দেশকে সহায়তা করতে এবার একত্রিত হয়েছেন ২০০৬ বিশ্বকাপ জয়ী ইতালিয়ান ফুটবলাররা। ইতালিয়ান রেড ক্রসের জন্য তহবিল গঠন করছেন বিশ্বজয়ী এ তারকারা।

ফ্যাবিও ক্যানেভারোর নেতৃত্বে ২০০৬ সালের বিশ্বকাপ জিতেছিল ইতালি। এবার তার নেতৃত্ব আরও একটি জয় চায় তারা। গাজেত্তা দেল্লো স্পোর্তসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ক্যানেভারো দেশের সবাইকে তাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, 'আমি আমার ২০০৬ সালের সতীর্থদের বলেছি আর একটি নতুন চ্যালেঞ্জ জয়ের জন্য প্রস্তুত হতে। ইতালিয়ান রেড ক্রসের তহবিল গঠনের জন্য আমরা সাহায্য করতে চাই। তোমরাও আমাদের অংশ হতে পারো। একত্রে এখনও আমরা এটা জয় করতে পারি।'

শুধু ক্যানেভারো নয় তাদের ২০০৬ বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম নায়ক আলেসান্দ্রো দেল পিয়েরো, ফ্রান্সিসকো তত্তি, জিয়ানলুইজি বুফনরাও সাহায্যের আবেদন করেছেন। তাদের অধীনে চলছে এ তহবিল গঠনের ক্যাম্পেইন। অনেকেই সামাজিক মাধ্যমে করোনাভাইরাস আক্রান্তদের জন্য সাহায্য চেয়ে নানা ধরণের পোস্ট দিচ্ছেন। সাহায্য চেয়ে দেল পিয়েরো লিখেছেন, 'তোমরাও আমাদের দলের অংশ হতে পারো।'

এ প্রসঙ্গে স্কাই ইতালিয়াতে সাক্ষাৎকারও দিয়েছেন দেল পিয়েরো। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, 'আমরা আসলে দেখেছি দুই তিন সপ্তাহ আগেও ইতালি কেমন ছিল। এখনও সঠিক কোনো নির্দেশনা নেই, তাই লোকজন ঘাবড়ে গিয়ে সুপার মার্কেট থেকে নানা দ্রব্য কিনে রাখছে। জানলে আমরা প্রস্তুত থাকতে পারতাম। করোনাভাইরাস থেকে আমেরিকাও নিরাপদ নয়।'

করোনাভাইরাসের কারণে ফুটবল খেলা বন্ধ হয়ে গেছে পৃথিবীর অনেক দেশে। শীর্ষ সব ফুটবল লিগই স্থগিত। এর মধ্যে ইতালিতেই সংক্রামণ হয় সবার আগে। শুরুতে সিরি আ'র বেশ কিছু ম্যাচ স্থগিত ও দর্শকশূন্য মাঠে আয়োজনের পর বন্ধ করে দেওয়া হয় পুরোপুরি। ফুটবল ক্লাব সাম্পাদিয়ার তো সাত খেলোয়াড় করোনা আক্রান্ত। আর ইতালি ফুটবল ফেডারেশন এই বছরের ইউরোর স্থগিত করার জন্য উয়েফার কাছে দাবিও জানাতে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ইতালিতে এখন পর্যন্ত ২৪ হাজার ৭৪৭ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছেন। জার মধ্যে মারা গেছেন ১ হাজার ৮০৯ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ হাজার ৩৩৫ জন রোগী।

Comments