শীর্ষ খবর

গাজীপুরে কোয়ারেন্টিন থেকে আরও ৪ জন হাসপাতালে

গাজীপুরের পূবাইল এলাকায় মেঘডুবি ২০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে কোয়ারেন্টিনে থাকা ইতালি ফেরত আরও চার জনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের তুলনায় বেড়ে যাওয়ায় আজ মঙ্গলবার ভোর রাতে তাদের উত্তরা এলাকায় কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
kuwait-bangladesh_friendship_govt_hospital
ছবি: প্রবীর দাস

গাজীপুরের পূবাইল এলাকায় মেঘডুবি ২০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে কোয়ারেন্টিনে থাকা ইতালি ফেরত আরও চার জনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের তুলনায় বেড়ে যাওয়ায় আজ মঙ্গলবার ভোর রাতে তাদের উত্তরা এলাকায় কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এর আগে রবিবার চার জনকে ওই হাসপাতালে নেওয়া হয়। মেঘডুবি হাসপাতাল থেকে এ নিয়ে মোট আট জনকে কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে নেওয়া হলো।

গাজীপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াসিউজ্জামান চৌধুরী জানান, গত ১৪ মার্চ রাতে মেঘডুবি ২০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে ইতালি ফেরত ৪৮ বাংলাদেশি নাগরিককে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। এর মধ্যে আট জনকে কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে পাঠানো হয়। মেঘডুবি ২০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র ছাড়াও গাজীপুর সদর উপজেলায় তিন জন এবং কালীগঞ্জ, শ্রীপুর ও কাপাসিয়া উপজেলায় ১ জন করে মোট ৬ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম বলেন, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে সমন্বয় করে গাজীপুর জেলা প্রশাসন পর্যবেক্ষণে থাকা ব্যক্তিদের পুষ্টিকর খাদ্য, বিশুদ্ধ পানীয়, চিকিৎসা সরঞ্জাম ও প্রয়োজনীয় সেবা দিচ্ছে। গাজীপুরবাসীর স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যথাযথ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

গাজীপুরের সিভিল সার্জন মো. খায়রুজ্জামান জানান, মেঘডুবি ২০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, একজন মেডিকেল অফিসার, দুই জন সাব-অ্যাসিসট্যান্ট মেডিকেল অফিসার ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সব সময় দায়িত্ব পালন করছেন।

Comments

The Daily Star  | English

Extreme heat sears the nation

The scorching heat continues to disrupt lives across the country, forcing the authorities to close down all schools and colleges till April 27.

10h ago