বিশেষ ফ্লাইটে ফিরে যাচ্ছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ানরা

পত্র-পত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখালেখি ও মাল্টিকালচারাল সোসাইটি অব ক্যাম্পবেলটাউনের বিশেষ উদ্যোগে অবশেষে বাংলাদেশে আটকে পড়া বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ানরা অস্ট্রেলিয়ায় ফিরতে পারছেন।
Shahjalal Airport
ছবি: স্টার ফাইল ফটো

পত্র-পত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখালেখি ও মাল্টিকালচারাল সোসাইটি অব ক্যাম্পবেলটাউনের বিশেষ উদ্যোগে অবশেষে বাংলাদেশে আটকে পড়া বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ানরা অস্ট্রেলিয়ায় ফিরতে পারছেন।

জানা গেছে, এ ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বাংলাদেশস্থ অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন। করোনাভাইরাসের কারণে সব ফ্লাইট বন্ধ থাকায় এসব অস্ট্রেলিয়ান দীর্ঘদিন অস্ট্রেলিয়ায় ফেরার ব্যাপারে অনিশ্চয়তায় ভুগছিলেন। তারা বারবার অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনে যোগাযোগ করেও কোনো সাড়া পাচ্ছিলেন না। বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ানরা যেহেতু জন্মসূত্রে বাংলাদেশেরও নাগরিক তাই তারা অস্ট্রেলিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনেও যোগাযোগ করেন। কিন্তু, তারাও কোনো ভূমিকা রাখতে আগ্রহ দেখাননি বলে অনেকে অভিযোগ করেছেন।

অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার জেরেমি ব্রুয়ার গতকাল মঙ্গলবার কমিশনের ভেরিফাইড পেজবুক পেজে বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়ানদের নিয়ে যাওয়ার জন্যে শ্রীলঙ্কান এয়ারলাইন্সের নন-শিডিউলড কমার্শিয়াল ফ্লাইটের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

যারা অস্ট্রেলিয়ায় ফিরতে চান তাদেরকে ইমেলে ফ্লাইট ডিপার্চার তারিখ ও টিকিটের দাম জানানো হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশন সূত্রে জানা যায়, করোনার কারণে তাদের কার্যক্রম সীমিত থাকা ও সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা না পাওয়ায় এতদিন তারা কোনো উদ্যোগ নিতে পারছিলেন না। অবশেষে এ ব্যাপারে বিশেষ ভূমিকা পালন করতে এগিয়ে আসে মাল্টিকালচার সোসাইটি অব ক্যাম্পবেলটাউন।

সংগঠনের সভাপতি এনাম হক ও জাহাঙ্গীর আলম যোগাযোগ করেন অস্ট্রেলিয়ান নাগরিকত্ব, অভিবাসন, অভিবাসী সেবা ও বহুজাতিক সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে। তাদের পরামর্শে কালচারাল সোসাইটি বাংলাদেশে আটকে পড়া ৭০৪ জন অস্ট্রেলিয়ানের নামের তালিকা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেয়।

অপর এক ফেসবুক পোস্ট থেকে জানা যায়, অস্ট্রেলিয়ান প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আগামী ১৬ এপ্রিল শ্রীলংকান এয়ারলাইন্সের একটি ‘নন কমার্শিয়াল’ ফ্লাইটে আটকে পড়া অস্ট্রেলিয়ান নাগরিকদের ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ঢাকা থেকে ফ্লাইট ছাড়বে রাত ৮টা ১৫ মিনিটে। মেলবোর্ন পৌঁছাবে পরদিন, ১৭ এপ্রিল দুপুর ২টা ২০ মিনিটে। ইকোনোমি ক্লাসের টিকেটের দাম ১,০৩২৯০ টাকা ও বিজনেস ক্লাস ১,৬৫০৯৬ টাকা। সাধারণ সময়ের চেয়ে এই দাম প্রায় দ্বিগুণ। যাত্রীদেরকে আগামী ৯ এপ্রিলের মধ্যে ইমেইল [email protected] যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

বাংলাদেশস্থ অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনের সার্কুলারে বলা হয়েছে, যে সব অস্ট্রেলিয়ান বাংলাদেশে অবস্থান করছেন তাদের জন্য এটাই শেষ বিশেষ ফ্লাইট। তাই আটকে পড়া সব অস্ট্রেলিয়ানদের এই ফ্লাইটের যাত্রী হওয়ার জন্য সার্কুলারে  নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এটাও বলা হয়েছে যে, এই ফ্লাইটে কেউ অস্ট্রেলিয়া ফিরতে না পারলে তার ফেরার বিষয়ে কোনো দায়িত্ব অস্ট্রেলিয়া সরকার নেবে না। তাদেরকে কমার্শিয়াল ফ্লাইট চলাচল শুরু হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

ওই ফ্লাইটে সব যাত্রীকে প্রথমে মেলবোর্ন নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে বাধ্যতামূলকভাবে প্রত্যেককে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশন সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশে আটকে পড়া অধিকাংশ যাত্রী সিডনি অধিবাসী হলেও সেখানে হোম কোয়ারান্টাইনের আওতাভুক্ত পাঁচতারা হোটেলগুলোতে আর কোনো জায়গা নেই। তাই তাদেরকে মেলবোর্ন নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

আকিদুল ইসলাম: সিডনি প্রবাসী লেখক, সাংবাদিক

Comments