৬ শতাংশের ওপরে থাকবে জিডিপি প্রবৃদ্ধি: অর্থমন্ত্রী

করোনাভাইরাসের প্রভাবে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি কমলেও তা চলতি অর্থবছরে ৬ শতাংশের উপরে থাকবে বলে মনে করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বাংলাদেশের জিডিপি নিয়ে বিশ্ব ব্যাংকের পূর্বাভাস সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় বলেও এদিন মন্তব্য করেছেন তিনি।
অর্থমন্ত্রীর ফাইল ফটো

করোনাভাইরাসের প্রভাবে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি কমলেও তা চলতি অর্থবছরে ৬ শতাংশের উপরে থাকবে বলে মনে করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বাংলাদেশের জিডিপি নিয়ে বিশ্ব ব্যাংকের পূর্বাভাস সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় বলেও এদিন মন্তব্য করেছেন তিনি।

গতকাল রোববার বিশ্বব্যাংক বলেছিল, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি চলতি অর্থবছরে ২ থেকে ৩ শতাংশে নেমে যেতে পারে। অর্থনৈতিক পূর্বাভাসে বৈশ্বিক ঋণদানকারী সংস্থাটি বলছে, আগামী অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি আরও কমে ১ দশমিক ২ থেকে ২ দশমিক ৯ শতাংশে নেমে যেতে পারে।

এ প্রসঙ্গে আজ অর্থমন্ত্রী বিবৃতি দিয়ে বলেন, বাংলাদেশের জিডিপি নিয়ে বিশ্ব ব্যাংকের এ পূর্বাভাস সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়, কেননা এখনই এটা বলার সময় আসেনি। বিশেষ করে অঙ্ক ধরে বলার উপযুক্ত সময় এটা নয়।

চলতি অর্থবছরের প্রথম আট মাসের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, বাংলাদেশে করোনার প্রভাব পড়ার আগেই অর্থবছরের আট মাস অতিবাহিত হয়ে গেছে। বাকি আছে মার্চ-জুন চার মাস। এ সময়ে যদি আমাদের শূন্য কিংবা ঋণাত্মক প্রবৃদ্ধিও হয় তারপরও আগের আট মাসে আমরা যা অর্জন করেছি সেটা ৬ শতাংশের বেশিই হবে। কিছুদিন আগে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক বলেছিল এবার আমাদের প্রবৃদ্ধি হবে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ।

তিনি বলেন, অর্থনীতির চেয়ে আমাদের এখন সবচেয়ে বড় অগ্রাধিকার হচ্ছে মানুষের জীবন রক্ষা করা। আমাদের প্রবৃদ্ধির প্রধান তিনটি খাত হলো কৃষি, শিল্প ও সেবা। কৃষিখাতে করোনাভাইরাসের তেমন কোনো প্রভাব পড়েইনি। এটা যদি দীর্ঘায়িত না হয় তাহলে কৃষিখাতে আমরা লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে সম্পূর্ণ প্রবৃদ্ধি অর্জনে সক্ষম হব। আর শিল্প খাতে কিছুটা প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। একইভাবে সেবাখাতেও কিছুটা প্রভাব পড়ছে। আমরা স্বীকার করছি প্রবৃদ্ধি কমবে, কিন্তু এতোটা কমবে না।

আরও পড়ুন:

বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ২ থেকে ৩ শতাংশ হতে পারে: বিশ্বব্যাংক

Comments