টেস্টিং কিট সংকট: চট্টগ্রামে করোনা পরীক্ষা ব্যাহতের শঙ্কা

টেস্টিং কিট সংকটে বন্ধ হয়ে যেতে পারে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশস ডিজিজেস (বি আই টি আই ডি) হাসপাতালের কোভিড-১৯ পরীক্ষা কার্যক্রম।
রয়টার্স ফাইল ফটো

টেস্টিং কিট সংকটে বন্ধ হয়ে যেতে পারে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) হাসপাতালের কোভিড-১৯ পরীক্ষা কার্যক্রম।

বিআইটিআইডি-এর ল্যাব ইনচার্জ ডা. শাকিল আহমেদ বলেন, ‘আমাদের কাছে ১০০ টির মতো কিট রয়েছে, যেগুলো দিয়ে আজকের (১৫ এপ্রিল) দিনটা কোনরকম চালানো যাবে। কালকে কী হবে বলতে পারি না।’

গতকালই ৯৫০টি পিসিআর কিট পেলেও ল্যাব কর্মকর্তারা বলছেন, যতক্ষণ না সম সংখ্যক এক্সট্রেকশন কিট পাওয়া যাচ্ছে, ততক্ষণ এই পিসিআর কিটগুলো কোনো কাজে আসবে না।

শাকিল আহমেদ বলেন, ‘কোভিড ১৯ পরীক্ষার বিভিন্ন ধাপ আছে। এই ধাপগুলো সম্পন্ন করতে পিসিআর ও এক্সট্রেকশন কিট উভয়ই প্রয়োজন। শুধু পিসিআর কিট দিয়ে পরীক্ষা করা যাবে না।’

তিনি বলেন, পরীক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে অবিলম্বে এক্সট্রেকশন কিট সরবরাহ করতে হবে।

বিষয়টি স্বীকার করে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, টেস্ট সম্পন্ন করার জন্য বাফার কিট আবশ্যক।  

‘ইতিমধ্যে বিআইটিআইডিকে নতুন করে প্রায় ১০০০টি পিসিআর কিট সরবরাহ করা হয়েছে। আশা করি খুব শিগগির তারা বাফার কিট পেয়ে যাবে,’ বলেন তিনি।

জানতে চাইলে চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার ও কোভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের বিভাগীয় কমিটির প্রধান এ বি এম আজাদ বলেন, ‘বিষয়টি স্বাস্থ্য বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও মন্ত্রণালয়কে অবহিত করেছি। তারা এই ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।’

 

 

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Where Horror Abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital.

4h ago