করোনা আতঙ্কে শের-ই-বাংলা মেডিকেলের বিকল্প গেট বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয়রা

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) পেছনের বিকল্প গেট বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয়রা। তাদের অভিযোগ করোনা আক্রান্ত ডাক্তার, নার্স ও মেডিকেল স্টুডেন্টরা এই গেট দিয়ে চলাচল করলে তারাও আক্রান্ত হবেন।
মেডিকেলে প্রবেশের বিকল্প গেট বন্ধ করে দিয়েছেন স্থানীয়রা। ছবি: স্টার

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) পেছনের বিকল্প গেট বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয়রা। তাদের অভিযোগ করোনা আক্রান্ত ডাক্তার, নার্স ও মেডিকেল স্টুডেন্টরা এই গেট দিয়ে চলাচল করলে তারাও আক্রান্ত হবেন।

গেট আটকে দেওয়ায় বিপাকে পড়েছে ডাক্তার, নার্স ও রোগীরা। তাদের ৩ কিলোমিটার ঘুরে শেবাচিম হাসপাতালে ঢুকতে হচ্ছে।

স্থানীয় এক দোকানদার জানান, মেডিকেল কলেজ লেন নামে পরিচিত সড়কটি স্টুডেন্ট, ডাক্তারও নার্সরা ব্যবহার করেন। কিন্তু, কিছুদিন আগে হাবিবুর রহমান ছাত্রাবাসের এক ছাত্র করোনা আক্রান্ত হন। এ কারণে ভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কায় এলাকাবাসী গেট বন্ধ করে দিয়েছে।

এই মেডিকেলের আন্তবিভাগ ডাক্তার এসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. সুদীপ হালদার বলেন, ‘এই গেট বন্ধ থাকায় ডাক্তার, ছাত্ররা সহজে মেডিকেলে ঢুকতে পারছেন না। ফলে, চিকিৎসা সেবা ব্যহত হচ্ছে।’

শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেন জানান, গেটটি খোলা রাখতে ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করছেন তিনি।

Comments