শীর্ষ খবর

ঠাকুরগাঁওয়ে ত্রাণ চেয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ

ত্রাণসামগ্রীর দাবিতে ঠাকুরগাঁও পৌর এলাকার জলেশ্বরীতলা এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন শতাধিক নারী-পুরুষ।
ঠাকুরগাঁওয়ে ত্রাণের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ। ছবি: স্টার

ত্রাণসামগ্রীর দাবিতে ঠাকুরগাঁও পৌর এলাকার জলেশ্বরীতলা এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন শতাধিক নারী-পুরুষ।

আজ সোমবার বিকেলে তারা বিক্ষোভ করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ বিকাল পৌনে ৫টার দিকে জলেশ্বরীতলা এলাকার শতাধিক মানুষ ঠাকুরগাঁও শহর-রেলস্টেশন সড়কের জলেশ্বর তলায় অবস্থান নেন। সে সময় তারা বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড নিয়ে সড়কে বসে বিক্ষোভ করতে থাকেন। ধীরে ধীরে বিক্ষুব্ধ মানুষের সংখ্যা বাড়তে থাকে। পরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে ত্রাণসামগ্রী দেওয়ার আশ্বাস দিলে তারা সড়ক থেকে সরে যান।

স্থানীয় বাসিন্দা সামিরা বেগম বলেন, ‘এখানে বেশিরভাগই নিম্ন আয়ের মানুষ। যারা পেশায় পরিবহন, কুলি ও কৃষিশ্রমিকসহ দিনমজুর। যাদের অনেকেই দৈনিক আয়ের ওপর নির্ভরশীল। করোনা পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন ধরে তাদের কাজ নেই। ঘরে যা ছিল, সব খাবার শেষ। এখন খেয়ে-না খেয়ে তাদের দিন কাটছে।’

এলাকার কাউন্সিলর প্রদীপ শঙ্কর চক্রবর্তী বলেন, ‘জলেশ্বরী তলায় ২০০ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা করা হয়েছে। যারা বিক্ষোভ করছেন, তাদের অনেকেই খাদ্য সহায়তা পেয়েছেন। এই বিক্ষোভের পেছনে কারো উস্কানিও থাকতে পারে।’

সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর দ্রৌপদী দেবী আগরওয়ালা বলেন, ‘প্ল্যাকার্ডের শক্ত ভাষাই বলে দেয় এর পেছনে কারো ইন্ধন আছে। তবে, ইন্ধন থাকলেও এসব মানুষ এই পরিস্থিতিতে খাদ্য সংকটে আছে। তাদের ত্রাণ প্রয়োজন।’

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নুর কুতুবুল আলম বলেন, ‘আমি নিজ হাতে ওই এলাকাসহ আশপাশের দুস্থদের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছি। এরপরেও তারা খাদ্য চেয়ে বিক্ষোভ করছেন। আমাদের মনে হয়েছে, এটা কারো প্ররোচনায় হয়েছে। বিষয়টি গোয়েন্দা সংস্থাকে খতিয়ে দেখতে বলেছি। এরপরও যাদের খাদ্য প্রয়োজন, তাদের হাতে খাদ্যপণ্য তুলে দিতে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।’

Comments

The Daily Star  | English

Bodies recovered from Raisi helicopter crash site

President Raisi, the foreign minister and all the passengers in the helicopter were killed in the crash, senior Iranian official told Reuters

5h ago