করোনায় মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ছাড়াল

করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ছাড়িয়েছে। গত ১১ জানুয়ারিতে করোনায় প্রথম মৃত্যু হয়েছিল। এর প্রায় তিন মাস পর গত ১১ এপ্রিল বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ছাড়ায়। এর মাত্র ১৫ দিনের মধ্যেই আরও ১ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারালেন।
ছবি জনস হপকিন্সের ওয়েবসাইট থেকে নেওয়া

করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ছাড়িয়েছে। গত ১১ জানুয়ারিতে করোনায় প্রথম মৃত্যু হয়েছিল। এর প্রায় তিন মাস পর গত ১১ এপ্রিল বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ছাড়ায়। এর মাত্র ১৫ দিনের মধ্যেই আরও ১ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারালেন। 

জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৮ লাখের বেশি মানুষ। মারা গেছেন ২ লাখ ৬৯৮, সুস্থ হয়েছেন ৮ লাখ ৩ হাজার জন।

গত শুক্রবার, বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৯ লাখ ১৯ হাজারের বেশি।

গত মার্চে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় সর্বোচ্চ ২ লাখ মানুষ মারা যেতে পারে বলে আশঙ্কা জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের করোনাভাইরাস টাস্কফোর্সের সদস্য ডা. ফউসি।

শনিবার, যুক্তরাজ্যে মৃতের সংখ্যা ২০ হাজার ছাড়িয়েছে। দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৪৯ হাজার ৫৫৪।

ইউরোপের সর্বোচ্চ আক্রান্ত দেশ স্পেনে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ২৩ হাজার ৭৫৯। মারা গেছেন ২২ হাজার ৯০২ জন।

ইউরোপের আরেক দেশ ইতালিতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯২ হাজার ৯৯৪ জন, মারা গেছেন ২৫ হাজার ৯৬৯ জন।

গতবছর ডিসেম্বরের শেষদিকে চীনের উহান শহরে প্রথম কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব দেখা যায়। মাত্র পাঁচ মাসের মধ্যেই বিশ্বের ১৮৫টি দেশে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে। একবিংশ শতাব্দীতে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় মহামারি কোভিড-১৯।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) জানায়, আগের দুই করোনাভাইরাস সার্স ও মার্সের তুলনায় কোভিড-১৯ সংক্রমণের দিক থেকে অনেক বেশি শক্তিশালী।

ডব্লিউএইচও’র হিসাব অনুযায়ী, ২০০৩ সালে সার্স (সিভিয়ার অ্যাকুইটি রেসপিরেটরি সিনড্রোম) করোনাভাইরাসে মারা যান ৭৭৪ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছিলেন ৮ হাজার ৯৮ জন।

অন্যদিকে, ২০১২ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত আরেক করোনাভাইরাস মার্সে (মিডল ইস্ট রেসপিরেটরি সিনড্রোম) মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৪৯৪, মারা গেছেন ৮৫৮ জন।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Where Horror Abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital.

3h ago