ফরাসী লিগে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হতে পারে নেইমারদের

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব ধরনের ফুটবল ম্যাচ আয়োজন বন্ধ করতে বলেছে ফরাসী সরকার। ফলে মৌসুমের লিগ ওয়ান ফের মাঠে গড়ানোর সব আশাই শেষ। তাতে আরও একটি শিরোপা থেকে বঞ্চিত হওয়ার পথে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। তবে তাদের জন্য আশার খবর দিয়েছে ফ্রান্সের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম লা'কিপ।
ছবি: এএফপি

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব ধরনের ফুটবল ম্যাচ আয়োজন বন্ধ রাখতে বলেছে ফরাসী সরকার। ফলে মৌসুমের লিগ ওয়ান ফের মাঠে গড়ানোর সব আশাই শেষ। তাতে আরও একটি শিরোপা থেকে বঞ্চিত হওয়ার পথে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। তবে তাদের জন্য আশার খবর দিয়েছে ফ্রান্সের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম লা'কিপ।

সংবাদ অনুযায়ী, ২০১৯-২০ মৌসুমের শিরোপা তুলে দেওয়া হবে পিএসজির হাতে। নিজেদের মধ্যে আলোচনার পর এমন সিদ্ধান্তই না-কি নিতে যাচ্ছে লিগ দা ফুটবল প্রফেশনাল (এলএফপি)। আর এমনটা হলে লিগ ওয়ানে এটা হবে পিএসজির নবম শিরোপা এবং টানা তৃতীয়।

এছাড়া অবনমন জোনে থাকা নিমেস, অ্যামিয়েন্স ও তাউলাউসের জন্যও ভাগ্য খুলতে পারে। চলতি মৌসুমে কোনো দলকে অবনমন নাও করা হতে পারে। যদিও এ বিষয় সঠিক কোনো সিদ্ধান্ত জানা যায়নি। এছাড়া পিএসজির সঙ্গে আগামী মৌসুমে মার্শেই, রেনেস ও লিলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সঙ্গী হতে পারে। কারণ পয়েন্ট টেবিল অনুযায়ী এ চারটি দলই শীর্ষে আছে।

অবশ্য লিগ ওয়ানের শিরোপা প্রায় নিশ্চিতই ছিল পিএসজির। লিগে প্রতি দলের ম্যাচ বাকি ছিল মাত্র ১০টি করে। এক ম্যাচ কম খেলেই দ্বিতীয় স্থানে থাকা মার্শেইর চেয়ে ১২ পয়েন্টে এগিয়ে আছে নেইমার-এমবাপেরা। বর্তমানে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে তারা। ফলে তাদের টপকে অন্য কেউ শেষ পর্যন্ত শীর্ষে ওঠা অনেকটা অবাস্তবই ছিল।

কিন্তু সরকারী সিদ্ধান্তের পর লিগ জয় অনেকটাই অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে যায় পিএসজির। দুদিন আগেই ফ্রান্সের ফুটবলের ভবিষ্যতের কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী এদুয়ার্দ ফিলিপে বলেছেন, 'সেপ্টেম্বরের আগে কোনো বড় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা হওয়া সম্ভব নয়। ২০১৯-২০ পেশাদার ফুটবল মৌসুম আবার শুরু করা যাবে না।'

উল্লেখ্য, গত মার্চ থেকেই বন্ধ রয়েছে ফ্রান্সের সব ধরনের ফুটবল। সম্প্রতি লকডাউনের পরিমাণ শিথিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর আগামী ১৭ জুন থেকে দর্শকশূন্য মাঠে লিগ ওয়ান ও টু ফের মাঠে গড়ানোর স্বপ্ন দেখছিল লিগ কমিটি। তবে সরকারী সিদ্ধান্তে তা স্বপ্নই থেকে যায় তাদের। 

Comments

The Daily Star  | English

Baily Road Fire: Rescue efforts underway, some feared trapped inside

10 hurt after jumping out of the building, 15 rescued so far

1h ago