মহামারিতে ব্যবসায় হুমকি, ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা দেখছে হুয়াওয়ে

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রভাব ইতোমধ্যে বৈশ্বিক অর্থনীতিতে পরিলক্ষিত হয়েছে। নতুন এই ভাইরাসের কারণে যেখানে মানুষের জীবনই ‘স্থবির’ হয়ে পড়েছে, সেখানে ব্যবসা-বাণিজ্যে এর প্রভাব পড়বে— এটিই স্বাভাবিক।
ছবি: সংগৃহীত

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রভাব ইতোমধ্যে বৈশ্বিক অর্থনীতিতে পরিলক্ষিত হয়েছে। নতুন এই ভাইরাসের কারণে যেখানে মানুষের জীবনই ‘স্থবির’ হয়ে পড়েছে, সেখানে ব্যবসা-বাণিজ্যে এর প্রভাব পড়বে— এটিই স্বাভাবিক।

সম্প্রতি চীনের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে জানায়, বছরের প্রথম তিন মাসে প্রতিষ্ঠানটির প্রবৃদ্ধি ১ দশমিক ৪ শতাংশ কমেছে। বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ডেটা করপোরেশন (আইডিসি) জানায়, বৈশ্বিক মহামারির কারণে গত তিন মাসে স্মার্টফোনের শিপমেন্ট প্রায় ১০ দশমিক ৬ শতাংশ কমেছে।

গবেষণা সংস্থা ক্যানালিসের বিশ্লেষক জিয়া মো বলেন, ‘যদি আগামী জুনের মধ্যে ইউরোপে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসে, তবে হুয়াওয়ের ব্যবসা বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়বে। ইউরোপে নেটওয়ার্ক নির্মাণে ব্যর্থ হলে হুয়াওয়ের ‘গুগল মোবাইল সেবা ছাড়া’ স্মার্টফোন আন্তর্জাতিক বাজারে ব্যবসা করতে পারবে না। অন্যদিকে, ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে চাহিদা দেশীয় বাজার পর্যন্তই সীমিত থাকবে।’

তবে, এ ভবিষ্যদ্বাণীর সঙ্গে একমত নন হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেন জেনফিং। বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য সংকটের কারণে নতুন ডিজিটাল পরিষেবার চাহিদা বেড়েছে বলে মনে করেন তিনি।

পোস্টকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমার ধারণা, কোভিড-১৯ মহামারি আমাদের বার্ষিক পরিকল্পনায় ব্যাপক প্রভাব ফেলবে। আমাদের খুচরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, দোকানের বিক্রিতে প্রভাব পড়বে। তবে, এখন অনলাইনে পড়াশোনা ও টেলি কমিউনিকেশনসহ অন্যান্য চাহিদা বেড়েছে। তাই আমাদের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়া যাবে। তা ছাড়া, সম্প্রতি আমাদের বিক্রিও বেড়েছে।’

স্মার্টফোন ও ল্যাপটপের ক্ষেত্রে নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম হারমোনি তৈরি করেছে হুয়াওয়ে। গুগল মোবাইল পরিষেবার বিপরীতে হুয়াওয়ে নিজস্ব অ্যাপও তৈরি করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বিকল্প হিসেবে তাইওয়ান, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও ইউরোপের অংশীদারদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় উপাদান সংগ্রহ করে হুয়াওয়ের নিজস্ব প্রসেসর ‘হাইসিলিকন কিরিন’র কাজ চলে।

অ্যাথেরটন টেকনোলজি রিসার্চের শীর্ষ বিশ্লেষক জ্যঁ ব্যাপটিস্ট বলেন, ‘আমার মনে হয় না আগামী এক বছরের মধ্যে গুগলের বিকল্প হিসেবে হুয়াওয়ে প্রতিযোগিতায় আসতে পারবে। আন্তর্জাতিক বাজারে তারা স্মার্টফোন বিপণন নিয়ে সমস্যায় পড়বে। তবে, স্থানীয় বাজারে হুয়াওয়ের আধিপত্য বাড়তে পারে। গুগল ম্যাপের পরিবর্তে টমটম, ক্রোমের পরিবর্তে ব্রেভ, এমনকি গুগল পে’র পরিবর্তে হুয়াওয়ের পেমেন্ট ব্যবস্থাও প্রতিযোগিতায় ভালো অবস্থানে আছে।’

বিশ্লেষক মাইক ফেইবাস বলেন, ‘করোনাভাইরাস পরবর্তী সময়ে অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার সময় ফাইভ-জি সেবা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এদিক থেকে হুয়াওয়ের ব্যবসার সম্ভাবনা আছে।’

রেন জেনফিংও বিশ্বাস করেন, মহামারির কারণেই হুয়াওয়ের ফাইভ-জি প্রযুক্তির চাহিদা বাড়বে।

তিনি বলেন, ‘মহামারির সমস্যা মাথায় রেখেই আমরা কাজ করছি। নতুন প্রযুক্তি যেমন: অনলাইন লার্নিং, মোবাইলে স্বাস্থ্যসেবা ও বাড়ি থেকে কাজ করার মতো উপযুক্ত প্রযুক্তি ভাইরাস মোকাবিলায় ভূমিকা রাখছে। ভবিষ্যতেও এগুলোর চাহিদা বাড়বে। তাই এই চাহিদাগুলো পূরণের কথা মাথা রেখেই আমাদের কাজ করতে হবে।’

Comments

The Daily Star  | English

$7b pledged in foreign funds

When Bangladesh is facing a reserve squeeze, it has received fresh commitments for $7.2 billion in loans from global lenders in the first seven months of fiscal 2023-24, a fourfold increase from a year earlier.

2h ago