গ্রামের মানুষের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে ইএসডিও’র স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্প

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে গ্রামের মানুষের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) স্বাস্থ্য ও পুষ্টি কার্যক্রমের আওতায় ইকো-সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (ইএসডিও) ঠাকুরগাঁও ও লালমনিরহাট জেলার চারটি ইউনিয়নে বিশেষ স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্প চালু করেছে।
বিশেষ স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্পে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর চিকিৎসাসেবার কাজ চলছে। ছবি: স্টার

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে গ্রামের মানুষের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) স্বাস্থ্য ও পুষ্টি কার্যক্রমের আওতায় ইকো-সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (ইএসডিও) ঠাকুরগাঁও ও লালমনিরহাট জেলার চারটি ইউনিয়নে বিশেষ স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্প চালু করেছে।

গতকাল শনিবার থেকে সমৃদ্ধি প্রকল্পের আওতায় এসব স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্প চালু করা হয়। এর মাধ্যমে দুই জেলার চার ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে শুক্রবার ছাড়া সপ্তাহে ছয় দিন সকাল দশটা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হবে। এ চার ইউনিয়ন হলো ঠাকুরগাঁওয়ের সদরের আউলিয়াপুর ইউনিয়ন,  পীরগঞ্জের জাবরহাট ইউনিয়ন, রানীশংকৈলের বাচোর ইউনিয়ন এবং লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের তুষভান্ডার ইউনিয়ন ।    

সমৃদ্ধি প্রকল্পের ফোকাল পারসন আইনুল হক জানান, প্রকল্পের আওতাধীন এই স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্পে মা ও শিশুর প্রাথমিক চিকিৎসাসেবাসহ সর্দি, কাশি, ডায়রিয়া ও অন্যান্য রোগের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হবে। যাতে করোনা পরিস্থিতিতে গ্রামীণ জনগণের কষ্ট লাঘব করা যায়।

প্রকল্পে কর্মরত স্বাস্থ্য পরিদর্শকের (প্যারামেডিক্স অর্থাৎ চার বছরের মেডিকেল ডিপ্লোমা ডিগ্রিধারী) নেতৃত্বে স্বাস্থ্যকর্মীদের সমন্বয়ে গঠিত স্বাস্থ্যসেবা দল রোগাক্রান্ত মানুষের চিকিৎসা করছে। বিশেষ প্রয়োজনে ইএসডিও শিশু ও কমিউনিটি হাসপাতালের মেডিকেল অফিসারগণ রোগীদেরও চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে জানান আইনুল হক। 

শনিবার এখানে চিকিৎসা নিতে আসেন কচুবাড়ি গ্রামের মোমেনা বেগম (৬৫)। তিনি বলেন, ‘কয়েকদিন ধরে জ্বর,সর্দি ও কাশিতে ভুগছি। এছাড়াও হাপানি রোগ আছে। গাড়ি বন্ধের কারণে শহরে যাওয়া কঠিন। এখানে বাড়ির কাছে ডাক্তার দেখাতে পেরে ভালো হলো।’

জাবরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হুমায়ূন কবীর বলেন, ‘প্রতিদিন এই ফ্রি স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্পের ব্যবস্থা করায় গ্রামের মানুষ সহজেই চিকিৎসা সেবা নিতে পারছেন।’

ইএসডিও’র নির্বাহী পরিচালক ড. মুহম্মদ শহীদ উজ জামান বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতিতে প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অথবা জেলা সদরে গিয়ে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করা দুরূহ হয়ে পড়েছে। এ পরিস্থিতি বিবেচনায় সমৃদ্ধি কর্মসূচির আওতাধীন এলাকায় গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’ 

 

 

Comments

The Daily Star  | English

International Mother Language Day: Languages we may lose soon

Mang Pu Mro, 78, from Kranchipara of Bandarban’s Alikadam upazila, is among the last seven speakers, all of whom are elderly, of Rengmitcha language.

12h ago