‘মনে হচ্ছে কঠিন উইকেটে টেস্ট খেলা হচ্ছে’

করোনাভাইরাস মহামারির এই সময়কে কঠিন উইকেটে টেস্ট খেলার মতো মনে হচ্ছে ভারতের সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমান বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির। মরনফাঁদের উইকেটে টিকে থেকে ম্যাচ জেতার চ্যালেঞ্জ ব্যাটসম্যানদের সামনে। সৌরভের সতর্কতা, কোনভাবেই ভুল করে ম্যাচ হাতছাড়া করা যাবে না।
sourav ganguly

করোনাভাইরাস মহামারির এই সময়কে কঠিন উইকেটে টেস্ট খেলার মতো মনে হচ্ছে ভারতের সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমান বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির। মরনফাঁদের উইকেটে টিকে থেকে ম্যাচ জেতার চ্যালেঞ্জ ব্যাটসম্যানদের সামনে। সৌরভের সতর্কতা, কোনভাবেই ভুল করে ম্যাচ হাতছাড়া করা যাবে না।

করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে এই সময়েই ভারতে সংক্রমণের মাত্রা সবচেয়ে বেশি। দফায় দফায় বাড়ছে লকডাউন। তবু শনিবার পর্যন্ত দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪২ হাজার। মৃত্যু হয়েছে ১৩৯১ জনের। প্রতিদিনই আসছে নতুন নতুন খারাপ খবর।

এমন পরিস্থিতিতে বাড়িতে আটকা সৌরভ ভারতীয় এক রেডিও চ্যানেলে সাক্ষাতকারে গোটা পরিস্থিতিকে বর্ণনা করেছেন ক্রিকেটীয় ভাষায়,  ‘মনে হচ্ছে কঠিন উইকেটে টেস্ট খেলার মতো কোন পরিস্থিতি এটা। পেসারদের বল সিম করছে, মুভমেন্ট পাচ্ছে, স্পিনারদের বল এক হাত করে ঘুরছে। অথচ ব্যাটসম্যানদের এই অবস্থায় উইকেটে টিকে থাকতে হবে। সামান্য ভুল হলেই আউট। পরিস্থিতি যতই খারাপ হোক টিকে থেকে আমাদের ম্যাচটা জিততেই হবে।’

শুরুর দিকে ত্রাণ বিতরণের কাজে ব্যস্ত সময় পার করেছেন সৌরভ। কিন্তু প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় একেবারেই ঘরবন্দি তিনি। নিত্য পণ্য সংগ্রহ করছেন হোম ডেলিভারিতে। এখন তাতেও ঘিরে ধরছে অজানা আতঙ্ক, ‘প্রতিদিন মৃত্যু বেড়ে চলেছে। সংক্রমণের মাত্রাও ঊর্ধ্বগামী। রীতিমতো ভয় ধরানো অবস্থা। অনেকে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পৌঁছে দিতে আসছেন। তাদের নিয়েও ভয় হচ্ছে। আবার মায়াও হচ্ছে। এই ভয়াবহ পরিস্থিতি থেকে দ্রুত মুক্তি দরকার।’

তবে এই চূড়ান্ত সংকট থেকে উত্তরণের জন্যও ক্রিকেটের দ্বারস্থ ভারতের অন্যতম সফল অধিনায়ক। হাল না ছেড়ে ম্যাচ জেতানোর পণ তার,  ‘ক্রিকেট আমাদের অনেক কিছু শেখায়। তারমধ্যে একটা হলো কঠিন অবস্থাতেও লড়াইয়ের তাগিদ। অনেক সময় তীব্র স্নায়ুচাপ সামলে আমাদের ম্যাচ বার করতে হয়, এটাও তেমনি। ধরুন এক বলে ম্যাচ জেতার রান নিতে হবে। এমন পরিস্থিতিতে ভুল করলেই সুযোগ নষ্ট।’

Comments

The Daily Star  | English

1.6m marooned in Sylhet flood

Eid has not brought joy to many in the Sylhet region as homes of more than 1.6 million people were flooded and nearly 30,000 had to move to shelter centres.

3h ago