বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে শর্ত সাপেক্ষে অনলাইনে পরীক্ষার অনুমতি দিলো ইউজিসি

দেশের যেসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় করোনা পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ার আগে চলতি সেমিস্টারের ৭০ শতাংশ অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম সম্পূর্ণ করেছে এবং পরবর্তীতে অনলাইনে তত্ত্বীয় কোর্সের ক্লাস নিয়েছে, তাদেরকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনলাইনে ভাইভা নিয়ে কোর্সের ফলাফল প্রকাশ করার অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।
UGC_Logo_Updated1
ছবি: সংগৃহীত

দেশের যেসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় করোনা পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ার আগে চলতি সেমিস্টারের ৭০ শতাংশ অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম সম্পূর্ণ করেছে এবং পরবর্তীতে অনলাইনে তত্ত্বীয় কোর্সের ক্লাস নিয়েছে, তাদেরকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনলাইনে ভাইভা নিয়ে কোর্সের ফলাফল প্রকাশ করার অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

এক্ষেত্রে প্রতিটি কোর্সে রেজিস্ট্রেশন করা শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৬০ শতাংশ অনলাইন ক্লাসে অংশ নিচ্ছে— এই বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিশ্চিত করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার দেওয়া এক নির্দেশনায় এটি জানিয়েছে ইউজিসি।

নির্দেশনায় জানানো হয়েছে, দেশের যেসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ার আগে চলতি সেমিস্টারের ৭০ শতাংশ অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম সম্পূর্ণ করেছে এবং পরবর্তীতে অনলাইনে তত্ত্বীয় কোর্সের ক্লাস নিয়েছে, তারা আগের কার্যক্রমের ক্লাস উপস্থিতি, পারফরম্যান্স, ক্লাস টেস্ট, মিড-টার্ম পরীক্ষার ওপর ভিত্তি করে দেওয়া নম্বর ও অনলাইনে পঠিত অংশের ওপর অ্যাসাইনমেন্ট, কেইস স্টাডি, ভাইভা (ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে), ভার্চুয়াল প্রেজেন্টেশন নিয়ে কোর্সের ফলাফল প্রকাশ করতে পারবে।

এক্ষেত্রে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে স্বচ্ছতা ও মান নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়েছে ইউজিসি। তবে, ল্যাবরেটরিভিত্তিক সব কোর্সের ব্যবহারিক ক্লাস নেওয়া, এর ওপর পরীক্ষা ও মূল্যায়ন করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পরপরই অতিরিক্ত সময় বরাদ্দ করে সরাসরি শ্রেণিকক্ষে সম্পন্ন করতে হবে বলে নির্দেশনায় জানিয়েছে ইউজিসি।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, করোনা পরিস্থিতি চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা আগের মতো নিয়মিতভাবে পরিশোধ করতে হবে। করোনা সংকটের কারণে আর্থিক অস্বচ্ছলতায় পড়া শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে মানবিক দিক বিবেচনায় বিদ্যমান সেশন, টিউশন বা অন্যান্য ফি মওকুফ, হ্রাস বা কিস্তিতে দেওয়ার সুযোগ রাখতে হবে। একইসঙ্গে করোনা সংকটকালীন সৃষ্ট আর্থিক পরিস্থিতি বিবেচনায় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এ সময়ে ফি আদায়ে মানসিক চার দেওয়া সমীচীন নয়, তাই তা পরিহার করে তাদের প্রতি মানবিক আচরণ করতে হবে।

অন্যদিকে, নতুন শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো জুন থেকে অনলাইনে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করতে পারবে এবং আগামী ১ জুলাই থেকে পরবর্তী সেমিস্টারের ক্লাস শুরু হবে।

ইউজিসির বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ডিভিশনের পরিচালক ফখরুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে অনলাইনে ক্লাস, পরীক্ষা ও ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

করোনা পরিস্থিতির কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বন্ধ রয়েছে। সর্বশেষ এই বন্ধ ১৬ মে পর্যন্ত বাড়িয়েছে সরকার।

গত ২৭ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ অব্যাহত থাকলে আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকবে।

সর্বশেষ গত ৩০ এপ্রিল শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, ইউজিসির শীর্ষ কর্মকর্তারা, বেশ কয়েকটি সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির (এপিইউবি) নেতারা বৈঠক করেন। ওই বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতেই আজ এই নির্দেশনা প্রকাশ করেছে ইউজিসি।

আরও পড়ুন:

অনলাইনেই হবে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস

Comments

The Daily Star  | English

Electric vehicles etching their way into domestic automobile industry

The automobile industry of Bangladesh is seeing a notable shift towards electric vehicles (EVs) with BYD Auto Co Ltd, the world’s biggest EV maker, set to launch its Seal model on the domestic market.

7h ago