যশোরে শ্রমিককে হত্যা

যশোরের অভয়নগর উপজেলায় শেখ আতিয়ার রহমান ওরফে আতাই (৫৫) নামে এক শ্রমিককে হত্যা করা হয়েছে।

যশোরের অভয়নগর উপজেলায় শেখ আতিয়ার রহমান ওরফে আতাই (৫৫) নামে এক শ্রমিককে হত্যা করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে বলে দ্য ডেইলি স্টারকে নিশ্চিত করেছেন যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) তৌহিদুল ইসলাম।

তিনি জানান, গতকাল রাত ১০টার দিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আতাইকে কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ১২টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

আতাই অভয়নগর উপজেলার মোয়াল্লেমতলা গ্রামের মৃত শেখ ইসমাইল হোসেনের ছেলে। তিনি স্থানীয় একটি জুট মিলে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, খুলনার ফুলতলা থানার উত্তর ডিহি, পায়গ্রাম, কসবা ও ফুলতলা বাজার এলাকায় চরমপন্থি দলের সক্রিয় সদস্য ছিলেন আতাই ও তার শ্যালক গিয়াস উদ্দিন। গিয়াস উদ্দিন একটি গ্রুপের নেতৃত্ব দিতেন। ২০১৪ সালে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গিয়াস উদ্দিন গ্রুপের হাতে নিশান নামে প্রতিপক্ষ আরেক চরমপন্থি খুন হন। নিশান হত্যায় তার পরিবারের কেউ মামলা না করায় অভয়নগর থানার পুলিশ বাদী হয়ে গিয়াস উদ্দিন ও আতাইসহ অন্যান্য আসামিদের নামে হত্যা মামলা দায়ের করে। 

মামলার পর গিয়াস উদ্দীন ও আতাই ভারতে পালিয়ে যায়। সাক্ষ্যপ্রমাণের অভাবে নিশান হত্যা মামলা খারিজ হলে আতাই প্রায় এক বছর আগে দেশে ফিরে আসেন। এরপর থেকে তিনি একটি জুট মিলে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। নিশান হত্যার প্রতিশোধ নিতে নিশানের খালাতো ভাই লিমন, তার সহযোগী কাজী তারেক ও মুন্নাসহ অন্যান্যরা আতাইকে খুন করতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

এএসপি তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আতাই হত্যার রহস্য উদঘাটন ও জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে। অভয়নগর থানার পুলিশসহ যশোর জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

Comments