স্বাস্থ্যকর্মীদের সম্মান জানাতে চ্যারিটি ম্যাচ খেলবে রিয়াল-বায়ার্ন-ইন্টার

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বেশ ভয়াবহ অবস্থা ইউরোপের দেশগুলোর। বিশেষ করে ইতালি ও স্পেনের। আর এ সময়ে কঠিন সময় পার করছেন ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীরা। নিজেদের জীবন ঝুঁকিতে ফেলেছেন। অনেকে মৃত্যুর কোলেও ঢলে পড়েছেন। ওইসব যোদ্ধাদের সম্মান জানাতে এবার চ্যারিটি ম্যাচ খেলবে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় তিন লিগের তিনটি ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ, বায়ার্ন মিউনিখ ও ইন্টার মিলান। তবে ঠিক কবে ম্যাচগুলো হবে তা এখনও নির্ধারিত হয়নি।
ফাইল ছবি: এএফপি

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের এ সময়ে সবচেয়ে কঠিন কাজগুলো করে যাচ্ছেন ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীরা। নিজেদের জীবন ঝুঁকিতে ফেলেছেন। অনেকে মৃত্যুর কোলেও ঢলে পড়েছেন। ওইসব যোদ্ধাদের সম্মান জানাতে এবার চ্যারিটি ম্যাচ খেলবে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় তিন লিগের তিনটি ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ, বায়ার্ন মিউনিখ ও ইন্টার মিলান। তবে ঠিক কবে ম্যাচগুলো হবে তা এখনও নির্ধারিত হয়নি।

চূড়ান্ত সূচি নির্ধারিত না হলেও প্রাথমিকভাবে আগামী বছর ২০২১ সালে ম্যাচ খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তিন দেশের এ তিন ক্লাব। রিয়ালের বিপক্ষে ইন্টারের ম্যাচটি হবে মাদ্রিদে, ইন্টার বনাম বায়ার্নের ম্যাচটি হবে মিলানে এবং রিয়াল ও বায়ার্ন মুখোমুখি হবে মিউনিখে। তবে সময়ের ব্যাপার চূড়ান্ত হবে সমর্থকরা কবে মাঠে গিয়ে খেলা দেখার অনুমতি পান তার উপর। অবশ্যই পরিস্থিতির উপর নির্ভর করছে এ সিদ্ধান্ত।

মূলত এ ম্যাচে ওইসব যোদ্ধা স্বাস্থ্যকর্মীদের আমন্ত্রণ জানানো হবে যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন বিশ্বের এ কঠিন দুর্যোগের সময়ে। কাদের আমন্ত্রণ জানানো হবে তা অবশ্য নির্ধারণ করবে স্বাগতিক দল। প্রতিটি ম্যাচে স্বাস্থ্যকর্মীদের আমন্ত্রণ জানাবে তারা। আর এ থেকে প্রাপ্ত সকল অর্থ ব্যবহার করা হবে ইতালি ও স্পেনের মেডিক্যাল খাতে। 

এ প্রসঙ্গে এক বিবৃতিতে রিয়ালের পক্ষে থেকে জানানো হয়েছে, 'তিনটি ক্লাব ওইসব নায়কদের আমাদের সংহতি, শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জানাতে চায়। তিন ক্লাবই ইউরোপের জনগণের মধ্যে সংহতি ও ভ্রাতৃত্বের বার্তা প্রেরণ করতে চায়।'

এ আসর আয়োজনের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন বায়ার্ন চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কার্ল-হেইঞ্জ রুমেনিগে। অথচ এ ম্যাচ থেকে প্রাপ্ত অর্থ নিজের দেশে খরচ না করে স্পেন ও ইতালিতে সব অর্থ দানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইতালি ও স্পেনের তুলনায় করোনাভাইরাস অনেক কমই ছড়িয়েছে জার্মানিতে। মৃত্যুর সংখ্যাও কম।

কারণ ব্যাখ্যা করে রুমেনিগে বলেন, 'করোনাভাইরাস ইউরোপে অনেক কঠিন আঘাত হেনেছে। অনেক ভোগান্তি ও সমস্যা সত্ত্বেও, জার্মানিতে আমরা সম্ভবত সৌভাগ্যবান যে আমাদের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা এই সংকটেও স্থিতিস্থাপক রয়েছি। তবে ইতালি ও স্পেনের ভয়াবহ চিত্রও দেখেছি, উভয় দেশই মহামারী দ্বারা অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। জার্মানদের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক অনেক ভালো রয়েছে। ছুটি কাটানোর জন্য এ দুটি দেশ আমাদের পছন্দের জায়গা।'

বায়ার্নের পক্ষ দেখে জানানো হয়েছে রিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচের দিন অ্যালিয়েঞ্জ অ্যারেনায় তারা ৫ হাজার ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীদের আমন্ত্রণ জানাবে।

Comments

The Daily Star  | English

‘Ekush’ taught us not to bow down: PM

Prime Minister and Awami League (AL) President Sheikh Hasina today said that Bangladesh is moving forward with the ideals taught by the great Language Movement of 1952

1h ago