পানিতে তলিয়ে গেছে চারালি বিলের পাকা ধান

কয়েকদিনের ভারী বৃষ্টিতে পানি বেড়েছে নদী, খাল, বিলসহ ছোট নালাগুলোতেও। পানিতে তলিয়ে গেছে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার চারালি বিলের পাঁচ শতাধিক বিঘার পাকা ধান।
লালমনিরহাটে চারালি বিলে পানিতে তলিয়ে গেছে পাকা ধান। ছবি: এস দিলীপ রায়

কয়েকদিনের ভারী বৃষ্টিতে পানি বেড়েছে নদী, খাল, বিলসহ ছোট নালাগুলোতেও। পানিতে তলিয়ে গেছে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার চারালি বিলের পাঁচ শতাধিক বিঘার পাকা ধান।

এদিকে, লালমনিরহাট-মোগলহাট সড়কের উন্নয়ন কাজে রাস্তায় কালভার্ট তৈরিতে নালার ওপর বাইপাস সড়ক দেয়ায় চারালি বিলের পানি নিষ্কাশন হচ্ছে না।

সাকোয়া গ্রামের কৃষক হাসান আলী (৫৫) জানান, তার জমির পাকা ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। বিলের পানি সরার জায়গা পাচ্ছে না।

দৈলজোড় গ্রামের কৃষক কাছের আলী (৫০) বলেন, অনেকে কষ্ট করে পানিতে ডুবে যাওয়া ধান কাটছেন, কিস্তু বাড়িতে ধান নিয়ে যেতে বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে।

একই গ্রামের কৃষক লুৎফর রহমান (৫৮) জানান, আগে চারালি বিলে পানি কখনো আটকা থাকতো না। নালা দিয়ে সব পানি ভাটিতে চলে যেতো। পরিকল্পনা মাফিক নালার ওপর বাইপাস সড়ক দিলে নালা দিয়ে পানি বের হতে পারত। তিনি অভিযোগ করেন, সড়ক ও জনপথের অধীনে কালভার্ট নির্মাণ কাজও শুরু করা হয় অসময়ে।

সাকোয়া গ্রামের কৃষক মিজানুর রহমান (৪৫) বলেন, তারা চারালি বিলের ধান ঘরে তুলতে না পারলে সংসার চালাতে কষ্টের মধ্যে পড়বেন। এই মুহূর্তে বিলের পানি নালা দিয়ে নিষ্কাশন করা না গেলে তাদের পাকা ধান পানির নিচেই পচে যাবে। কৃষি বিভাগ, সড়ক বিভাগ ও স্থানীয় প্রশাসনের কাছে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান কৃষকেরা।

লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকোশলী মাহবুব আলম বলেন, চারালি বিলের পানি নালা দিয়ে দ্রুত নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করে কৃষকের ধান রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। তিনি বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখছেন বলেও জানিয়েছেন।

 

Comments

The Daily Star  | English
 remittance inflow

$12.9b in remittances received in last 6 months: minister

Finance Minister Abul Hasan Mahmud Ali today told the parliament from July to July to January of the current financial year (2023-24), the country received some $12.9 billion ($12, 900.63 million) in remittances

50m ago