বাজেটে ফুটবলের জন্য আলাদা কোনো বরাদ্দ নেই

২০১৯-২০ অর্থবছরে ২০ কোটি টাকা বিশেষভাবে বরাদ্দ করা হয়েছিল। কিন্তু বাফুফে কেবল ১০ কোটি টাকা পেয়েছে।
kazi salahuddin
ফাইল ছবি: স্টার

অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে ৪০ কোটি টাকা বরাদ্দের উচ্চাভিলাষী অনুরোধ জানিয়েছিল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। কিন্তু ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিশেষ কোনো বরাদ্দ দেওয়া হয়নি সংস্থাটিকে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বৃহস্পতিবার দুপুর ৩টায় জাতীয় সংসদ অধিবেশনে ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট উত্থাপন করেন।

বাংলাদেশের ঘরোয়া ফুটবলের উন্মাদনা অনেক দিন থেকেই পড়তির দিকে। এর মূল কারণ অর্থাভাব। পর্যাপ্ত পৃষ্ঠপোষক পায় না বাফুফে। তাই আর্থিক ঘাটতি পোষাতে ও ফুটবলের উন্নয়নের জন্য চলমান ২০১৯-২০ অর্থবছরে ২০ কোটি টাকা বিশেষভাবে বরাদ্দ করা হয়েছিল। কিন্তু বাফুফে কেবল ১০ কোটি টাকা পেয়েছে।

দ্বিতীয় কিস্তির ১০ কোটি টাকা জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি) দেয়নি বাফুফেকে। কারণ, দেশের ক্রীড়াক্ষেত্রের উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণকারী সর্বোচ্চ প্রতিষ্ঠানকে প্রথম কিস্তির অর্থ ব্যয় সংক্রান্ত পর্যাপ্ত কাগজপত্র দেখাতে পারেনি সংস্থাটি।

বাফুফের সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন অবশ্য একটি ভিডিও বার্তায় বলেছেন যে, করোনাভাইরাসের মহামারির সময়ে সরকারের কাছ থেকে কোনো বরাদ্দ প্রত্যাশাও করেননি তারা।

‘করোনাভাইরাসের মাঝে জাতীয় বাজেটে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) জন্য বরাদ্দের আশা করিনি। আমি চেষ্টাও করিনি। কারণ, প্রত্যেককে প্রথমে বেঁচে থাকতে হবে এবং অনেক বড় বড় সমস্যা মোকাবিলা করতে হবে।’

‘অন্যদের মতো আমরাও আর্থিক সমস্যার মুখোমুখি হব। তবে আর্থিক সমস্যা কাটিয়ে ওঠা আমাদেরই কাজ। আমি বিশ্বাস করি, এটি কোনো সমস্যা নয়। করোনাভাইরাসের পরে ফুটবল যখন আবার শুরু হবে, তখন আমরা এটি কাটিয়ে উঠব। দরকার হলে তখন আমরা সরকারকে অনুরোধ করব আমাদেরকে সাহায্য করার।’

Comments

The Daily Star  | English

Banking sector abused by oligarchs: CPD

Oligarchs are using banks to achieve their goals, harming good governance, transparency, and accountability in the financial sector, said economists and experts yesterday.

1h ago