গোল উদযাপন করতে গিয়ে ইনজুরিতে ডর্টমুন্ড কোচ

নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ। চলছিল যোগ করা অতিরিক্ত সময়ের খেলা। তাও শেষ পর্যায়ে। যে কোনো সময়ে শেষ বাঁশি বাজাবেন রেফারি। মনে হচ্ছিল ম্যাচটির পরিণতি যেন গোলশূন্য ড্র। ঠিক তখনই হলে ওঠেন দলের তরুণ তারকা আরলিং হালান্ড। দারুণ এক লক্ষ্যভেদে দলকে জয় এনে দিলেন। এমন জয়ে উচ্ছ্বাসটা স্বাভাবিকভাবেই হয় বাঁধভাঙা। তার প্রকাশ করতে গিয়ে বিপদ ডেকে এনেছেন দলের প্রধান কোচ লুসিয়ান ফেভ্রে। ইনজুরিতে পড়েছেন তিনি।

নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ। চলছিল যোগ করা অতিরিক্ত সময়ের খেলা। তাও শেষ পর্যায়ে। যে কোনো সময়ে শেষ বাঁশি বাজাবেন রেফারি। মনে হচ্ছিল ম্যাচটির পরিণতি যেন গোলশূন্য ড্র। ঠিক তখনই জ্বলে ওঠেন দলের তরুণ তারকা আরলিং হালান্ড। দারুণ এক হেডে দলকে জয় এনে দিলেন। এমন জয়ে উচ্ছ্বাসটা স্বাভাবিকভাবেই হয় বাঁধভাঙা। তার প্রকাশ করতে গিয়ে বিপদ ডেকে এনেছেন দলের প্রধান কোচ লুসিয়ান ফেভ্রে। ইনজুরিতে পড়েছেন তিনি।

ইনজুরি থেকে ফিরে এখনও সম্পূর্ণ ফিটনেস না পাওয়ায় ফরচুনা ডুসেলডর্ফের বিপক্ষে আগের দিন ম্যাচের মূল একাদশে ছিলেন না হালান্ড। কিন্তু পরিস্থিতির কারণে নেমেছিলেন ম্যাচের ৬১তম মিনিটে। নেমেও খুব একটা সুবিধা করতে পারছিলেন না। তবে শেষ পর্যন্ত তিনিই পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন ৯৫তম মিনিটে তার দেওয়া গোলেই ১-০ ব্যবধানে জয় পায় বরুসিয়া ডর্টমুন্ড।

আর হালান্ডের গোল দেওয়ার পরই ডাগআউটে লাফাতে থাকেন কোচ ফেভ্রে। এক পর্যায়ে বাঁ পায়ের পেশীতে টান লাগে তার। দ্রুতই প্রাথমিক চিকিৎসা নেন তিনি। গত নভেম্বরে বরুসিয়া মনশেনগ্লাডব্যাকের বিপক্ষে ম্যাচেই বাঁ পায়ে ব্যথা পেয়েছিলেন তিনি। ধারণা করা হচ্ছে সেখানেই ফের চোট পেয়েছেন এ কোচ। তবে ইনজুরি কতোটা ভয়াবহ তা জানা যায়নি। তার উচ্ছ্বাসের পর ইনজুরিতে পড়ার ভিডিও চিত্র অবশ্য সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।

ডর্টমুন্ডের জয়ের দিনে শিরোপার অনেকটাই কাছে চলে এসেছে বায়ার্ন মিউনিখ। আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় আগের দিন মনশেনগ্লাডব্যাকের বিপক্ষে ২-১ গোলে জিতে ৭৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরও মজবুত করেছে। আর মাত্র একটি ম্যাচ জিতলেই শিরোপা হবে তাদের। অন্যদিকে সমান ৩১ ম্যাচে ডর্টমুন্ডের পয়েন্ট ৬৬।

Comments

The Daily Star  | English
Rapidly falling groundwater level raises fear for freshwater crisis, land subsidence; geoscientists decry lack of scientific governance of water

Dhaka stares down the barrel of water

Once widely abundant, the freshwater for Dhaka dwellers continues to deplete at a dramatic rate and may disappear far below the ground.

8h ago