করোনাভাইরাস

মৃত্যু ৪ লাখ ৭২ হাজার, আক্রান্ত প্রায় ৯১ লাখ

বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়ত মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। ইতোমধ্যে চার লাখ ৭২ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৯১ লাখ। এ ছাড়া, সুস্থও হয়েছেন প্রায় সাড়ে ৪৫ লাখ মানুষ।
ব্রাজিলে করোনার প্রাদুর্ভাব চলাকালীন মারা যাওয়া এক ব্যক্তির মরদেহ দাফন করা হচ্ছে। ৩ মে ২০২০। ছবি: রয়টার্স

বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়ত মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। ইতোমধ্যে চার লাখ ৭২ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৯১ লাখ। এ ছাড়া, সুস্থও হয়েছেন প্রায় সাড়ে ৪৫ লাখ মানুষ।

আজ মঙ্গলবার জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টার এ তথ্য জানিয়েছে।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৯০ লাখ ৯৮ হাজার ৮৫৫ জন এবং মারা গেছেন ৪ লাখ ৭২ হাজার ১৭২ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৪৫ লাখ ২৬ হাজার ৪০৭ জন।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৩ লাখ ১২ হাজার ৩০২ জন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ২০ হাজার ৪০২ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৬ লাখ ৪০ হাজার ১৯৮ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১১ লাখ ৬ হাজার ৪৭০ জন, মারা গেছেন ৫১ হাজার ২৭১ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৬ লাখ ১ হাজার ৭৩৬ জন।

মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে তৃতীয়তে রয়েছে যুক্তরাজ্য। দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৪২ হাজার ৭৩১ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৬ হাজার ৭৬১ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৩২২ জন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে রাশিয়া ও পেরুতেও। রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৯১ হাজার ৪৬৫ জন এবং মারা গেছেন ৮ হাজার ১৯৬ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৮৪৭ জন। পেরুতে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৫৭ হাজার ৪৪৭ জন এবং মারা গেছেন ৮ হাজার ২২৩ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৪৫ হাজার ৩২০ জন।

প্রতিবেশী দেশ ভারতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৪০ হাজার ২১৫ জন, মারা গেছেন ১৪ হাজার ১১ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৪৮ হাজার ১৯০ জন।

ইউরোপের দেশ স্পেনে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৪৬ হাজার ৫০৪ জন, মারা গেছেন ২৮ হাজার ৩২৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৫০ হাজার ৩৭৬ জন। ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৩৮ হাজার ৭২০ জন, মারা গেছেন ৩৪ হাজার ৬৫৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৮৩ হাজার ৪২৬ জন। ফ্রান্সে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৩৮১ জন, মারা গেছেন ২৯ হাজার ৬৬৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৭৪ হাজার ৭৩৬ জন। জার্মানিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯১ হাজার ৭৬৮ জন, মারা গেছেন ৮ হাজার ৮৯৯ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৭৫ হাজার ১৪৩ জন।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরানে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৭ হাজার ৫২৫ জন, মারা গেছেন ৯ হাজার ৭৪২ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৬৬ হাজার ৪২৭ জন। তুরস্কে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৮৮ হাজার ৮৯৭ জন, মারা গেছেন ৪ হাজার ৯৭৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৬১ হাজার ৫৩৩ জন।

ভাইরাসটির সংক্রমণস্থল চীনে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৪ হাজার ৬২৪ জন, মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৩৯ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৭৯ হাজার ৫৪৭ জন।

উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। প্রতিষ্ঠানটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ১ লাখ ১৫ হাজার ৭৮৬ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। মারা গেছেন ১ হাজার ৫০২ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৪৬ হাজার ৭৫৫ জন।

Comments

The Daily Star  | English

Last-minute purchase: Cattle markets attract crowd but sales still low

Even though the cattle markets in Dhaka and Chattogram are abuzz with people on the last day before Eid-ul-Azha, not many of them are purchasing sacrificial animals as prices of cattle are still quite high compared to last year

8h ago