বিশ্বকাপ ফাইনাল পাতানো নিয়ে ডি সিলভাকে ৬ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ

শ্রীলঙ্কার ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ও সাবেক অধিনায়ক ডি সিলভা ২০১১ বিশ্বকাপের সময়ে দলটির প্রধান নির্বাচকের ভূমিকায় ছিলেন।
aravinda de silva
ছবি: এএফপি

২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল পাতানোর অভিযোগ তদন্তের শুরুতে অরবিন্দ ডি সিলভাকে ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে শ্রীলঙ্কা পুলিশের নতুন প্রতিষ্ঠিত ক্রীড়া সম্পর্কিত দুর্নীতি দমন ইউনিট।

মঙ্গলবার কলম্বোতে দুর্নীতি দমন ইউনিটের সুপারিন্টেন্ডেন্ট জগথ ফনসেকা স্থানীয় গণমাধ্যমের কাছে বলেন, ‘আজ আমরা ম্যাচ পাতানোর অভিযোগের (২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল) তদন্ত শুরু করেছি।’

শ্রীলঙ্কার ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ও সাবেক অধিনায়ক ডি সিলভা ২০১১ বিশ্বকাপের সময়ে দলটির প্রধান নির্বাচকের ভূমিকায় ছিলেন।

ওই আসরের ফাইনালে মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে লঙ্কানরা আগে ব্যাট করে ছুঁড়ে দিয়েছিল ২৭৫ রানের লক্ষ্য। জবাবে গৌতম গম্ভীর ও মহেন্দ্র সিং ধোনির দারুণ দুটি ইনিংসে ৬ উইকেটের জয় পেয়েছিল ভারত। ওপেনার গম্ভীর খেলেছিলেন ৯৭ রানের ইনিংস। অধিনায়ক ধোনির ব্যাট থেকে এসেছিল অপরাজিত ৯১ রান।

‘অরবিন্দ ডি সিলভা যে বিবৃতি দিয়েছেন তার ভিত্তিতে আমরা ২০১১ সালের স্কোয়াডের অন্যতম খেলোয়াড় উপুল থারাঙ্গাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আগামীকাল (বুধবার) তলব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি,’ জানান ফনসেকা।

জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ৫৪ বছর বয়সী ডি সিলভা কোনো বিবৃতি দিতে রাজি হননি। আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, ছয় ঘণ্টা ধরে অন্তত তিনজন গোয়েন্দার বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়েছে তাকে।

২০১১ বিশ্বকাপের সময় শ্রীলঙ্কার ক্রীড়া মন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা মাহিনদানান্দা আলুথগামাগে গেল মাসে কোনো রাখঢাক না করে সরাসরি অভিযোগ করেন যে, ভারতের কাছে ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল বিক্রি করেছিল শ্রীলঙ্কা! পরবর্তীতে অবশ্য সুর নমনীয় করে কেবল সন্দেহের কথা জানান তিনি।

ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে ম্যাচ পাতানো নিয়ে তদন্ত শুরু করার নির্দেশ দিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার। বর্তমান ক্রীড়া মন্ত্রী দুল্লাস আলাহাপ্পেরুমা তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে প্রতি দুই সপ্তাহ অন্তর প্রতিবেদনও চেয়েছেন।

Comments

The Daily Star  | English

Bangladeshi students likely to fly home from Kyrgyzstan on chartered flights

There have been no major attacks in hostels of international students since last night

20m ago