জেকেজির চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনার ৩ দিনের রিমান্ড

জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীকে ভুয়া কোভিড-১৯ পরীক্ষার প্রতিবেদন দেওয়ার মামলায় আজ সোমবার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন ঢাকার একটি আদালত।
জাল কোভিড-১৯ প্রতিবেদন দেওয়ার অভিযোগে ২০ জুলাই জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। স্টার ফাইল ছবি

জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীকে ভুয়া কোভিড-১৯ পরীক্ষার প্রতিবেদন দেওয়ার মামলায় আজ সোমবার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন ঢাকার একটি আদালত।

তেজগাঁও থানার পরিদর্শক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) হাসনাত খন্দকার ডা. সাবরিনার চার দিনের রিমান্ড আবেদন চেয়ে আদালতে হাজির করার পর মহানগর হাকিম মো. শাহিনুর রহমান এই আদেশ দেন।

রিমান্ড আবেদনে আইও জানান, জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান হিসেবে ডা. সাবরিনা সরাসরি জাল কোভিড-১৯ পরীক্ষার প্রতিবেদন দেওয়ার সঙ্গে জড়িত ছিলেন। সুতরাং, বিষয়টি সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য খুঁজে পেতে এবং এর সঙ্গে জড়িত অন্যদের অবস্থান সম্পর্কে জানতে তাকে রিমান্ডে নেওয়া দরকার।

এক প্রশ্নের জবাবে ডা. সাবরিনা আদালতকে জানিয়েছিলেন যে তিনি আর জেকেজির চেয়ারম্যান নেই এবং এই ঘটনার সঙ্গে তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

রিমান্ড আবেদন বাতিল করে তিনি তার জামিন মঞ্জুর করার জন্য আদালতের কাছে আবেদন করেছিলেন।

জেকেজির ভুয়া কোভিড-১৯ প্রতিবেদনের বিষয়টি সামনে আসার প্রায় তিন সপ্তাহ পর গতকাল রোববার ডা. সাবরিনাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট এবং হাসপাতালের একজন নিবন্ধিত চিকিৎসক হিসেবে দায়িত্বে থাকা ডা. সাবরিনা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নিয়ম লঙ্ঘন করায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

গত ২৪ জুন ভুয়া কোভিড-১৯ পরীক্ষার প্রতিবেদন দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ তার স্বামী ও জেকেজির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল চৌধুরী এবং আরও চারজনকে গ্রেপ্তার করে।

জেকেজি হেলথ কেয়ারের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে জালিয়াতিসহ বিভিন্ন অভিযোগে চারটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গত শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে জেকেজি হেলথ কেয়ারের নমুনা সংগ্রহের অনুমতি বাতিল করে দেয়।

Comments

The Daily Star  | English

Storm in Houston puts start of Bangladesh-USA series in doubt

“The start of the USA v Bangladesh T20I series scheduled for May 21 is currently in doubt after a major storm system ripped through the Houston area on Thursday,” Penna wrote on X

7m ago