কালই বিশ্বকাপ স্থগিতের ঘোষণা দেবে আইসিসি, প্রত্যাশায় বিসিসিআই

আগামীকাল সোমবার আইসিসির ভার্চুয়াল বোর্ড সভা অনুষ্ঠিত হবে। বিসিসিআইয়ের প্রত্যাশা, এই সভা শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বকাপ স্থগিতের ঘোষণা দেবে বিশ্বের সর্বোচ্চ ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।
logo icc bcci
ছবি: সম্পাদিত

আরব আমিরাতের মাটিতে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) আয়োজনের সম্ভাব্য সময়সীমা নির্ধারণ করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। এমনটা দাবি করেছে জনপ্রিয় ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফো। কিন্তু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থগিত করা না হলে এই পরিকল্পনা বাস্তবে রূপ নেওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

আগামীকাল সোমবার আইসিসির ভার্চুয়াল বোর্ড সভা অনুষ্ঠিত হবে। বিসিসিআইয়ের প্রত্যাশা, এই সভা শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বকাপ স্থগিতের ঘোষণা দেবে বিশ্বের সর্বোচ্চ ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা। আর এর পরপরই আইপিএল নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে তারা।

সূচি অনুসারে, আগামী ১৮ অক্টোবর থেকে ১৫ নভেম্বরের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর বসা কথা রয়েছে। কিন্তু বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের ফলে সৃষ্ট পরিস্থিতির কারণে প্রতিযোগিতাটি শেষ পর্যন্ত মাঠে গড়াবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে জোরালো শঙ্কা। বিভিন্ন সময়ে অজি ক্রিকেট বোর্ডের বক্তব্যে আভাস মিলেছে, চলতি বছর আর অনুষ্ঠিত হচ্ছে না বিশ্বকাপ।

রবিবার ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআইয়ের কাছে বিসিসিআইয়ের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, ‘(আইপিএল আয়োজনের জন্য) প্রথম ধাপ ছিল এশিয়া কাপ স্থগিত করা, যা এরই মধ্যে হয়েছে। এখন আমরা পরিকল্পনা অনুসারে এগোতে পারি যদি আইসিসি (টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ) স্থগিত করে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া আসরটি আয়োজনের ব্যাপারে খুব বেশি আগ্রহ না দেখালেও তারা সিদ্ধান্তটি ঝুলিয়ে রেখেছে।’

ক্রিকইনফো জানিয়েছে, আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে আইপিএল আয়োজনের একটি সম্ভাব্য ছক কষেছে ভারতীয় বোর্ড। আরব আমিরাতের তিন মূল ভেন্যু- দুবাই, আবুধাবি ও শারজাহতে খেলা রাখার চিন্তা করা হয়েছে।

গেল শুক্রবার প্রতিযোগিতাটির ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনায় বসেছিল বিসিসিআই। সভায় পুরো আইপিএল আরব আমিরাতে করার ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে। ভারতেই আসরটি আয়োজন করার চিন্তা থাকলেও সেখানকার করোনাভাইরাস পরিস্থিতির চরম অবনতি হওয়ায় সেই পথে হাঁটছে না সংস্থাটি।

Comments

The Daily Star  | English

C&F staff halt work at 4 container depots

Staffers of clearing and forwarding (C&F) agents stopped working at four leading inland container depots (ICDs) in the port city since the early hours today following a dispute with customs officials, which eventually led to a clash between C&F staff and staff of an ICD

21m ago