শীর্ষ খবর

গাজীপুরে বেতন-বোনাসের দাবিতে পোশাক শ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ

শতভাগ ঈদ বোনাস ও বেতন পরিশোধের দাবিতে গাজীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে পোশাক শ্রমিকরা।
শ্রমিকরা কারখানা থেকে বের হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নিলে সেখানে মহাসড়কের উভয়দিকে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। ছবি: স্টার

শতভাগ ঈদ বোনাস ও বেতন পরিশোধের দাবিতে গাজীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে পোশাক শ্রমিকরা।

আজ বুধবার সকাল থেকে গাজীপুর মহানগরের দক্ষিণ সালনা এলাকার অক্সফোর্ড শার্ট লিমিটেড কারখানার শ্রমিকেরা কয়েক দফা অবরোধ ও বিক্ষোভ করে।

এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় পুলিশের দুই সদস্যসহ অন্তত সাত জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১০ রাউন্ড টিয়ার সেল ও দুই রাউন্ড সাউন্ড গ্রেনেড ছোঁড়ে।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের পরিদর্শক ইস্কান্দর হাবিব দ্য ডেইলি স্টারকে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, আজ বুধবার ওই কারখানার শ্রমিকদের চলতি জুলাই মাসের ১৫ দিনের বেতন পরিশোধের তারিখ দেওয়া ছিল। আর আগামীকাল বৃহস্পতিবার বোনাস পরিশোধের কথা ছিল। আজ সকালে কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বেতন দেওয়া শুরুর আগে শ্রমিকরা ঈদুল আজহার শতভাগ ও গত ঈদুল ফিতরের বকেয়া ৫০ ভাগসহ মোট দেড়শ ভাগ ঈদ বোনাস ও চলতি জুলাইয়ের পুরো মাসের বেতন পরিশোধের দাবি জানান।

এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের আশ্বাস না পেয়ে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তারা কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ শুরু করেন। এক পর্যায়ে, সকাল ১০টার দিকে শ্রমিকেরা কারখানা থেকে বের হয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নেন। সেখানে মহাসড়কের উভয়দিকে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যানজটের সৃষ্টি হয়।

পুলিশ কর্মকর্তা ইস্কান্দর হাবিব বলেন,‘ শ্রমিকদের অবরোধ চলাকালে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনার আশ্বাস দিয়ে তাদেরকে সড়ক থেকে সরে যেতে বলা হয়। এ সময় শ্রমিকেরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাথর ছুঁড়তে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করলে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের কয়েক দফা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়।’

তিনি জানান, মহাসড়কে বেলা ১১টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে শ্রমিক প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা শেষে কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের জুলাই মাসের ২০ দিনের বেতন ও ঈদুল আজহার শতভাগ এবং গত ঈদুল ফিতরের বকেয়া ৫০ ভাগ বোনাস আগামীকাল বৃহস্পতিবার পরিশোধ করবে বলে জানায়।

কারখানার ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) আব্দুল্লাহ আল ফারুক বলেন, ‘শ্রমিকদের কোনো বকেয়া পাওনা নেই। নির্ধারিত সময়েই তাদের সকল পাওনা পরিশোধ করা হয়েছে। সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী গত ঈদুল ফিতরের ৫০ ভাগ বোনাস শ্রমিকদের পরিশোধ করা হয়েছে।’

তিনি আরও জানান, শ্রমিকদের দাবির প্রেক্ষিতে কারখানা কর্তৃপক্ষ ঈদুল আজহার শতভাগ বোনাস ও জুলাই মাসের ২০ দিনের বেতন পরিশোধের আশ্বাস দিয়েছে। ঈদুল ফিতরের বকেয়া ৫০ ভাগ বোনাস ঈদুল আজহার পর পরিশোধ করা হবে।

Comments

The Daily Star  | English

Cyclones now last longer

Remal was part of a new trend of cyclones that take their time before making landfall, are slow-moving, and cause significant downpours, flooding coastal areas and cities. 

7h ago