বৈরুতে অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট বহনকারী জাহাজের মালিককে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে গত মঙ্গলবারের ভয়াবহ বিস্ফোরণের জন্য দায়ী অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট বহন করা জাহাজের মালিককে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সাইপ্রাস পুলিশ।
Igor Grechushkin-1.jpg
ছবি: সংগৃহীত

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে গত মঙ্গলবারের ভয়াবহ বিস্ফোরণের জন্য দায়ী অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট বহন করা জাহাজের মালিককে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সাইপ্রাস পুলিশ।

সাইপ্রাস পুলিশের এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে আজ শুক্রবার রয়টার্স জানায়, সাইপ্রাসে অবস্থান করা ওই রুশ নাগরিককে বৃহস্পতিবার বিকেলে তার বাসভবনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

বৈরুত বন্দরের গুদামে ছয় বছর ধরে অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে থাকা দুই হাজার ৭৫০ মেট্রিক টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট ওই বিস্ফোরণের জন্য দায়ী বলে লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব বুধবার এক বিবৃতিতে জানান।

ওই অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট বহন করা জাহাজ এমভি রোসাস’র মালিক রুশ ব্যবসায়ী ইগর গ্রেচুশকিনকে (৪৩) সাইপ্রাস পুলিশ চিহ্নিত করতে পেরেছে।

সাইপ্রাস পুলিশের মুখপাত্র ক্রিস্টোস আন্দ্রেউ রয়টার্সকে বলেন, ‘ইন্টারপোল বৈরুত এই ব্যক্তির খোঁজ জানতে চেয়েছিল। ওই জাহাজ সম্পর্কে কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞাসার অনুরোধ জানানো হয়েছিল।’

‘জিজ্ঞাসাবাদের পর সেগুলো তাদেরকে জানানো হয়েছে’, যোগ করেন তিনি। তবে, এ সম্পর্কে তিনি আরও বিস্তারিত বলতে রাজি হননি।

জাহাজের মালিক গ্রেচুশকিনের সঙ্গেও রয়টার্স যোগাযোগ করতে পারেনি।

সিএনএন জানায়, ২০১৩ সালে দুই হাজার ৭৫০ মেট্রিক টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটের চালান নিয়ে রাশিয়ান জাহাজটি মোজাম্বিকের উদ্দেশে রওনা হয়েছিল। কিন্তু, আর্থিক সংকটে পড়ে সেটি বৈরুতে থেমেছিল। সেসময় জাহাজের রাশিয়ান ও ইউক্রেনীয় ক্রুদের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্বও হয়েছিল।

জাহাজটি বৈরুত বন্দরে পৌঁছানোর পর আর বন্দর ছেড়ে যায়নি বলে জানিয়েছেন লেবাননের কাস্টমস পরিচালক বদ্রি দাহের। তারা জাহাজটিকে ‘ভাসমান বোমা’ উল্লেখ করে বেশ কয়েকবার সতর্ক করেছিলেন বলেও জানা যায়।

গত মঙ্গলবার জাহাজটি বিস্ফোরিত হয় এবং এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৫৪ নিহত হয়েছেন এবং অন্তত পাঁচ হাজার লোক আহত হয়েছেন।

Comments

The Daily Star  | English

Three lakh stranded as flash flood hits 4 upazilas of Sylhet

Around three lakh people in four upazilas of Sylhet remain stranded by a flash flood triggered by heavy rain in the bordering areas and India's Meghalaya

17m ago