হারের বেদনা ভুলতে বাড়ি ফিরতে চান ডি ব্রুইন

চলতি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপার অন্যতম দাবীদার ছিল ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি। প্রত্যাশা অনুযায়ী এগিয়ে যাচ্ছিল দলটি। কিন্তু আগের দিন কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচে পা হড়কায় দলটি। তাও অপেক্ষাকৃত দুর্বল অলিম্পিক লিঁওর বিপক্ষে। আর এমন অনাকাঙ্ক্ষিত হারের দুঃখ ভুলতে পারছেন না দলের সেরা তারকা কেভিন ডি ব্রুইন। তাই মনোযোগ অন্যদিকে সরাতে দ্রুত বাড়ি ফিরতে চান এ বেলজিয়ান মিডফিল্ডার।
ছবি: এএফপি

চলতি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপার অন্যতম দাবীদার ছিল ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি। প্রত্যাশা অনুযায়ী এগিয়ে যাচ্ছিল দলটি। কিন্তু আগের দিন কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচে পা হড়কায় দলটি। তাও অপেক্ষাকৃত দুর্বল অলিম্পিক লিঁওর বিপক্ষে। আর এমন অনাকাঙ্ক্ষিত হারের দুঃখ ভুলতে পারছেন না দলের সেরা তারকা কেভিন ডি ব্রুইন। তাই মনোযোগ অন্যদিকে সরাতে দ্রুত বাড়ি ফিরতে চান এ বেলজিয়ান মিডফিল্ডার।

লিসবনে আগের দিন লিঁওর কাছে ৩-১ গোলের ব্যবধানে হেরে যায় সিটিজেনরা। আসরের অন্যতম ফেভারিট দলটি অবশ্য শুরুটা প্রত্যাশামতো করতে পারেনি। ২৪তম মিনিটেই পিছিয়ে যায়। দ্বিতীয়ার্ধে ডি ব্রুইনের গোলে সমতায় ফিরেছিল দলটি। তবে এরপর মৌসা দেম্বেলের জোড়া গোলে হার নিশ্চিত হয়ে যায় তাদের। আর এমন হার মেনে নিতে পারছেন না এ বেলজিয়ান তারকা।

তাই হারের কষ্ট ভুলতে এখন স্ত্রী ও সন্তানের কাছে ফিরে যেতে চাইছেন ডি ব্রুইন, 'আমি বাড়ি ফিরতে চাই কারণ আমার স্ত্রী প্রত্যাশা করছে। আমার কোনো কিছুতে মনোযোগ দিতে হবে।'

প্রথমার্ধে ভালো না খেললেও দ্বিতীয়ার্ধে দারুণ ফুটবল খেলেছিল সিটি। কিন্তু তারপরও এ অর্ধের দুটি গোল সব শেষ করে দেয় তাদের, 'এটা ভিন্ন একটি বছর, একই জিনিস। প্রথমার্ধটা খুব ভালো ছিল না। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা সত্যি ভালো খেলেছি। ১-১ এ সমতায় ফিরেছি এবং অনেক সুযোগও তৈরি করেছি। কিন্তু এরপর ২-১ এবং ৩-১ হয়ে গেল।'

তবে এরপরও সুযোগ ছিল তাদের। ২-১ গোলে পিছিয়ে থাকার পর খালি পোস্টে গোল দেওয়ার সহজ একটু সুযোগ পেয়েছিলেন রহিম স্টার্লিং। কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে তার শট বারপোস্টের উপর দিয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এমন হারের পর এ ম্যাচ থেকে শিক্ষা নেওয়ার কথা বলেন এ বেলজিয়ান, 'দ্বিতীয়ার্ধে ভালো খেলে আমরা তাদের চাপে রেখেছিলাম। আমরা অনেক বেশি আক্রমণাত্মক ছিলাম। এমনকি ২-১ এর সময় রাস (রহিম স্টার্লিং) যদি ওই গোলটা করতো তাহলে ২-২ হতো। এরপর তারা ৩-১ ব্যবধান করে এবং ম্যাচ শেষ হয়ে যায়। লিঁও ওইভাবে করেনি তবে আমাদের এ থেকে শিক্ষা নিতে হবে।'

Comments

The Daily Star  | English
Bangladeshis consume 136 eggs a year, people in developed countries 400

Bangladeshis consume 136 eggs a year, people in developed countries 400

Experts say at a seminar on “Doctors' dialogue on right to protein”

1h ago