ভারতের গণমাধ্যমে পররাষ্ট্র সচিবের সফরের প্রতিফলন

ভারতের পররাষ্ট্রসচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার আকস্মিক ঢাকা সফর দেশ দুটির গণমাধ্যমে বেশ গুরুত্ব পেয়েছে। করোনা মহামারির মধ্যে দুই দিনের সফরে এসে তিনি দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে। তাদের আলোচনার বিষয়বস্তু নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে দুই দেশের সংবাদমাধ্যমে।
Momaen and Shringla
ঢাকায় বাংলাদেশ পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার বৈঠক। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের পররাষ্ট্রসচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার আকস্মিক ঢাকা সফর দেশ দুটির গণমাধ্যমে বেশ গুরুত্ব পেয়েছে। করোনা মহামারির মধ্যে দুই দিনের সফরে এসে তিনি দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে। তাদের আলোচনার বিষয়বস্তু নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে দুই দেশের সংবাদমাধ্যমে।

কূটনীতিকদের বরাত দিয়ে আজ বৃহস্পতিবার হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতের পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে আলোচনায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ দুটির মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধির পাশাপাশি দ্বিপাক্ষিক অবকাঠামো প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের ওপর জোর দিয়েছেন।

প্রকল্প দেখভালের জন্যে বাংলাদেশে ভারতের হাইকমিশনার ও বাংলাদেশের পররাষ্ট্রসচিবকে প্রধান করে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি দ্রুত গঠন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

এতে আরও বলা হয়, দ্বিপাক্ষিক প্রকল্পগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের জন্যে প্রতিবেশী দেশ দুটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে জয়েন্ট কনসালটেটিভ কমিশনের বৈঠক আয়োজনের বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ভারতের সংবাদমাধ্যম নিউজএইটটিন গতকাল এক প্রতিবেদনে জানায়, তিস্তা নদী নিয়ে বাংলাদেশে চীনের সম্ভাব্য বিনিয়োগের প্রেক্ষাপটে শ্রিংলার এই সফর অনুষ্ঠিত হলেও গত আট বছর ধরে চেষ্টা করেও বাংলাদেশ ও ভারত তিস্তা নদীর পানি বণ্টন চুক্তি সই করতে পারেনি।

এতে আরও বলা হয়, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আপত্তির কারণে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তিস্তা নদী নিয়ে চুক্তি করতে গিয়েও থেমে যান।

শ্রিংলার এই সাম্প্রতিক ঢাকা সফরে তিস্তা চুক্তি নিয়ে কতোটুকু আলোচনা হয়েছে সে সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি বলেও নিউজএইটটিনের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার শুরু হওয়া শ্রিংলার দুই দিনের সফর সম্পর্কে দ্য হিন্দুর প্রতিবেদন গতকাল বলা হয়, ঢাকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে পররাষ্ট্রসচিব শ্রিংলার বৈঠকে ভারত ও বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে একটি দুই বছরের ‘রোড ম্যাপ’ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

এছাড়াও, আলোচনায় আখাউড়া ও আগরতলার মধ্যে রেল সংযোগ, ১৩২০ মেগাওয়াটের খুলনা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র ও অন্যান্য প্রকল্পগুলো আগামী বছর উদ্বোধন করার বিষয়ে আশা প্রকাশ করা হয়েছে। বাংলাদেশ-ভারতের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীর চলমান কর্মসূচিকে সামনে রেখে প্রকল্পগুলো উদ্বোধন করার সম্ভাবনার কথা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, শেখ হাসিনা মিয়ানমারে নির্যাতিত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের ‘দ্রুত ও নিরাপদ প্রত্যাবাসনের’ বিষয়ে কথা বলেছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এশিয়ান নিউজ ইন্টারন্যাশনালের (এএনআই) এক প্রতিবেদনে আজ বৃহস্পতিবার বলা হয়, পররাষ্ট্রসচিব শ্রিংলা বলেছেন, বাংলাদেশ সবসময়ই ভারতের কাছে অগ্রাধিকার পায়। শেখ হাসিনার সঙ্গে শ্রিংলার আলোচনায় বিভিন্ন বিষয়ের মধ্যে দুই দেশের নিরাপত্তা ইস্যু, পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ঠ বিষয়, যোগাযোগ ও বাণিজ্য বৃদ্ধি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

New School Curriculum: Implementation limps along

One and a half years after it was launched, implementation of the new curriculum at schools is still in a shambles as the authorities are yet to finalise a method of evaluating the students.

6h ago