বাংলাদেশ আমার দ্বিতীয় দল: বিদায়বেলায় ম্যাকেঞ্জি

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ব্যাটিং কোচের পদ ছেড়ে দিয়েছেন নিল ম্যাকেঞ্জি।
Neil McKenzie
ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ব্যাটিং কোচের পদ ছেড়ে দিয়েছেন নিল ম্যাকেঞ্জি। দায়িত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার কারণ হিসেবে পরিবারকে সময় দেওয়ার প্রসঙ্গ তুলেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এই ক্রিকেটার। টাইগারদের সঙ্গে কাজ করার মুহূর্তগুলো ভীষণ উপভোগ্য ছিল জানিয়ে বিদায়বেলায় বাংলাদেশকে নিজের দ্বিতীয় দল হিসেবেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

ম্যাকেঞ্জি বর্তমানে অবস্থান করছেন নিজ দেশ দক্ষিণ আফ্রিকায়। শুক্রবার সেখান থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হোয়্যাটসঅ্যাপে বার্তা পাঠিয়ে দ্য ডেইলি স্টারকে বিসিবির চাকরি ছাড়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন তিনি।

ক্ষুদে বার্তায় ম্যাকেঞ্জি বলেছেন, ‘আশা করছি, আপনারা সবাই ভালো আছেন। হ্যাঁ, আমি পদত্যাগ করেছি। একমাত্র কারণ হলো, আমাকে লম্বা সময় ধরে পরিবারের বাইরে থাকতে হচ্ছিল। বর্তমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতি, সামনের ব্যস্ত সূচি ও সকল সংস্করণে কাজ করা- সবমিলিয়ে আমার পরিবারের জন্য এটা কঠিন হয়ে পড়ছিল। টাইগারদের অংশ হতে পারায় আমার ভালো লেগেছে। বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য আমার হৃদয়ে সবসময় একটি কোমল জায়গা থাকবে এবং কাজ করতে পারায় আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি।’

বিদায়বেলায় ম্যাকেঞ্জি যোগ করেছেন, ‘সত্যিই বাংলাদেশে আমার সময়টা খুব উপভোগ করেছি। বাংলাদেশের মানুষ সাদরে গ্রহণ করেছিল আমাকে। খেলোয়াড়রা আমাকে খুব দ্রুত তাদের অংশ বানিয়ে ফেলেছিল। বাংলাদেশ আমার দ্বিতীয় দল।’

২০১৮ সালে সাদা বলের ক্রিকেটের ব্যাটিং উপদেষ্টা হিসেবে ম্যাকেঞ্জিকে নিয়োগ দিয়েছিল বিসিবি। তার সঙ্গে বোর্ডের চুক্তি ছিল ২০১৯ সালের ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ পর্যন্ত। প্রশিক্ষণ দেওয়ার পদ্ধতির কারণে অল্প সময়ে ক্রিকেটারদের মাঝে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন তিনি। তাই বিশ্বকাপের পর তার সঙ্গে নতুন করে দুই বছরের চুক্তি করেছিল বোর্ড।

লাল বলেও বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের সঙ্গে কাজ করেছেন ম্যাকেঞ্জি। গেল বছর ভারত সফরে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের আগে টাইগার ব্যাটসম্যানদের দীক্ষা দিয়েছিলেন তিনি। চলতি বছরের শুরুতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঘরের মাঠে একমাত্র টেস্টেও যুক্ত ছিলেন। তাই আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরের ক্যাম্পের জন্য বিসিবির পরিকল্পনায় ছিলেন ম্যাকেঞ্জি। কিন্তু মেয়াদের এক বছর বাকি থাকতেই বিদায় বলে দিয়েছেন তিনি।

Comments