কোভিড-১৯: চলাচলের ওপর আর বিধিনিষেধ থাকছে না

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া রাতে বাড়ি থেকে বের হওয়ার ওপর যে বিধিনিষেধ ছিল তার মেয়াদ বাড়ায়নি সরকার। ফলে আগামীকাল থেকে রাত ১০টার পর বাইরে চলাফেরায় বাধা থাকছে না।
কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য হাসপাতাল খোলার আগেই ফটকের বাইরে মানুষের দীর্ঘ সারি। ২৫ আগস্ট সকাল সাড়ে ৭টা, মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, ঢাকা। ছবি: আনিসুর রহমান

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া রাতে বাড়ি থেকে বের হওয়ার ওপর যে বিধিনিষেধ ছিল তার মেয়াদ বাড়ায়নি সরকার। ফলে আগামীকাল থেকে রাত ১০টার পর বাইরে চলাফেরায় বাধা থাকছে না।

মহামারির মধ্যেই সীমিত পরিসরে চলাচল ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু হওয়ার পর পালনীয় বিধিনিষেধ সম্পর্কে নিয়মিত নির্দেশনা দিয়ে এসেছে সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। গত ৩ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে বলা হয়েছিল রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের হওয়া যাবে না। সেই সঙ্গে রাত আটটার মধ্যে দোকানপাট ও বিপণি বিতান বন্ধ রাখতে বলা হয়। ৩১ আগস্ট পর্যন্ত এই আদেশ কার্যকর থাকবে বলে তখন জানানো হয়েছিল।

সরকারের নতুন সিদ্ধান্ত সম্পর্কে আজ যেসব নির্দেশনার কথা বলা হয়েছে তাতে বাড়ির বাইরে অবস্থান এবং দোকানপাট খোলা রাখার সময়সীমার ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। এতে বলা হয়, জনগণের সার্বিক কাজ বা চলাচলের ক্ষেত্রে স্ব স্ব মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও কর্তৃপক্ষ তাদের আওতাধীন বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে। তবে বাড়ির বাইরে অবস্থানের সময় আগের মতোই মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক থাকছে।

গণপরিবহনের ভাড়া বাড়িয়ে আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের সিদ্ধান্ত থেকেও সরে এসেছে সরকার। ১ সেপ্টেম্বর থেকে  পূর্ণ আসনে আগের ভাড়ায় গণপরিবহন চলাচল করবে।

কোভিড ১৯ পরিস্থিতিতে গত ২৪ মার্চ থেকে দেশে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দুই মাসের বেশি বন্ধ থাকার পর ৩১ মে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস, লঞ্চ ও রেল চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়। বাসে অর্ধেক আসন ফাঁকা রাখার শর্তে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর অনুমতি দিয়েছিল সরকার।

আরও পড়ুন: 

১ সেপ্টেম্বর থেকে আগের ভাড়ায় গণপরিবহন

Comments

The Daily Star  | English

Iran's President Raisi, foreign minister killed in helicopter crash

President Raisi, the foreign minister and all the passengers in the helicopter were killed in the crash, senior Iranian official told Reuters

3h ago