আবাসন প্রকল্প দেখতে ৪০ রোহিঙ্গা মাঝি ভাসানচরে

আবাসন প্রকল্প দেখাতে ৪০ রোহিঙ্গা মাঝিকে নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আজ শনিবার দুপুরে জেলার অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) মোহাম্মদ সামসুদ্দৌজা নয়ন দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
Vasanchar_5Sep20.jpg
নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের জন্য নির্মিত আবাসন প্রকল্প। ছবি: এএফপি

আবাসন প্রকল্প দেখাতে ৪০ রোহিঙ্গা মাঝিকে নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আজ শনিবার দুপুরে জেলার অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) মোহাম্মদ সামসুদ্দৌজা নয়ন দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আরআরআরসি কার্যালয় সূত্র জানায়, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও নৌবাহিনীর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে অবস্থিত মোট ৩৪টি রোহিঙ্গা শিবির থেকে ৪০ জনকে ভাসানচরের আবাসন প্রকল্প পরিদর্শনের জন্য বাছাই করা হয়েছে। গতকাল রাতে তাদের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ট্রানজিট ক্যাম্পে নিয়ে আসা হয়। আজ ভোর ৫টায় সড়ক পথে প্রথমে তাদের চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে নৌবাহিনীর নৌযানে করে ভাসানচরে।

সামসুদ্দৌজা নয়ন আরও বলেন, রোহিঙ্গা মাঝিদের ভাসানচর পরিদর্শনে নিয়ে যাওয়াটা একটি মোটিভেশনাল কার্যক্রম। তারা সেখানে ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অবস্থান করবেন। এরপর তারা কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবিরে ফিরে আসবে।

সূত্র জানায়, ভাসানচরে এক লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়া যাবে। দুই হাজার ৩১২ কোটি টাকা ব্যয়ে এই আবাসন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। ভাসানচরের অবস্থান মূল ভূ-খণ্ড থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে। ১৩ কিলোমিটার দীর্ঘ ও তিন মিটার উঁচু বেড়িবাঁধ দিয়ে চরটিকে সুরক্ষিত করা হয়েছে।

রোহিঙ্গা শিবির ব্যবস্থাপনায় প্রশাসনকে যেসব রোহিঙ্গা নেতা সহযোগিতা করছেন তাদের মাঝি বলা হয়।

Comments

The Daily Star  | English

Afif exposing BCB’s bitter truth

Afif Hossain has been one of the most fortuitous cricketers in the national fold since his debut in February 2018.

6h ago