শীর্ষ খবর

বাংলাদেশিদের জন্য শ্রমবাজার খুলতে রাজি মালয়েশিয়া: প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়

বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য শিগগির শ্রমবাজার আবার খুলতে রাজি হয়েছে মালয়েশিয়া। আজ বৃহস্পতিবার প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়েছে।
স্টার ফাইল ছবি

বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য শিগগির শ্রমবাজার আবার খুলতে রাজি হয়েছে মালয়েশিয়া। আজ বৃহস্পতিবার প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদের সঙ্গে আজ বৃহস্পতিবার এক অনলাইন বৈঠক করেন মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানন। বৈঠকে মালয়েশিয়ার মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন কোভিড-১৯ পরিস্থিতি উন্নতি হলে সে দেশে কর্মী নিয়োগ শুরু হবে।

নিয়োগ প্রক্রিয়ায় দুর্নীতি ও উচ্চ নিয়োগ ব্যয়ের অভিযোগে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশি কর্মীদের নিয়োগ স্থগিত করে মালয়েশিয়া।

আজকের বৈঠকে দুই দেশের মন্ত্রী এ বিষয়ে চুক্তি সই, কর্মী নিয়োগে অনলাইন সিস্টেম প্রবর্তন, কর্মী পাঠাতে এজেন্টদের ভূমিকা, পরবর্তী যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ সভার আয়োজন এবং করোনাভাইরাসের কারণে আটকে থাকা বাংলাদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়ায় ফেরাসহ আরও কয়েকটি বিষয়ে আলোচনা করেন।

বাংলাদেশ লাইসেন্সধারী এজেন্টদের তালিকা পাঠানোর পর, মালয়েশিয়া সুষ্ঠুভাবে শ্রমিক নিয়োগ নিশ্চিত করতে তালিকা থেকে প্রয়োজনীয় সংখ্যক এজেন্ট বেছে নেওয়ার বিষয়ে দুই দেশের মন্ত্রী একমত প্রকাশ করেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ডেটাবেস থেকে কর্মী নির্বাচন করা এবং ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে বকেয়া অর্থ প্রদানসহ পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া একটি সমন্বিত অনলাইন সিস্টেম ব্যবহার করে পর্যবেক্ষণ করা হবে।

দুই মন্ত্রী নিয়োগ প্রক্রিয়ায় নজরদারি বাড়াতে সম্মত হন।

শিগগির পরবর্তী যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকের কথা জানিয়ে, আটকে পড়া বাংলাদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়ায় ফিরিয়ে নিতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে সম্মত হন তারা।

বাংলাদেশকে এ বিষয়ে পরে জানানো হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

আজ ভার্চুয়াল বৈঠকে ইমরান আহমদ মালয়েশিয়ায় অনিবন্ধিত বাংলাদেশি কর্মীদের নিয়মিতকরণে সারাভাননের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। বৈঠকে উভয় দেশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা অংশ নেন।

Comments

The Daily Star  | English
hostility against female students

The never-ending hostility against female students

What was intended to be a sanctuary for empowerment has morphed into a harrowing ordeal for many female students

17h ago