মাস্ক দিয়ে সাজল নারায়ণগঞ্জের পূজা মণ্ডপ

করোনা মহামারিতে দেবী দুর্গার বোধন ও অধিবাসের মধ্যে দিয়ে আগামীকাল শুরু হতে যাচ্ছে শারদীয় দুর্গোৎসব। আর ভক্ত দর্শনার্থীদের জন্য অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক। এই মাস্ক দিয়েই নারায়ণগঞ্জে একটি পূজা মণ্ডপ সাজানো হয়েছে।

করোনা মহামারিতে দেবী দুর্গার বোধন ও অধিবাসের মধ্যে দিয়ে আগামীকাল শুরু হতে যাচ্ছে শারদীয় দুর্গোৎসব। আর ভক্ত দর্শনার্থীদের জন্য অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক। এই মাস্ক দিয়েই নারায়ণগঞ্জে একটি পূজা মণ্ডপ সাজানো হয়েছে।

একদিন আগে বুধবার বিকেলে সরেজমিনে শহরের নিতাইগঞ্জ এলাকায় ‘বলদেব জিউর আখড়া শিব মন্দির’ দুর্গা পূজা মণ্ডপে গিয়ে দেখা যায়, মণ্ডপ সাজানোর শেষ মুহূর্তের কাজ তখন চলছে। প্রতিমার সাজসজ্জার কাজও চলছে পুরোদমে।

দেখা যায়, মণ্ডপের মধ্যের অংশ সাজানো হয়েছে মাস্ক, স্যানিটাইজার বোতল দিয়ে। সিলিংয়ে সারিবদ্ধ ভাবে কয়েক হাজার মাস্ক ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়াও মণ্ডপের দুই পাশে মাস্ক ব্যবহৃত দেবী দুর্গার প্রতিমা স্থাপন করা হয়েছে। সব প্রতিমাকে পরানো হয়েছে লাল সবুজ শাড়ির ওপর নার্সের অ্যাপ্রন। দুই প্রতিমাতেই দেবী দুর্গা সিরিঞ্জ হতে করোনাভাইরাস আকৃতির অসুর বধ করছেন।

মণ্ডপের ভিতরে দুর্গার করোনা বধের প্রতিমা থাকলেও বাইরে প্রদর্শন করা হয়েছে বিভিন্ন আলোকচিত্র। যেখানে সমাজ ও স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক বিভিন্ন বার্তা রয়েছে।

প্রতিমা সাজসজ্জার কারিগর জগদীশ পাল দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘প্রতিমার শাড়ির পরানোর কাজ শেষ। এখন অলংকার ও অন্যান্য সাজসজ্জা করা হচ্ছে। আজ রাতেই সব কাজ শেষ হয়ে যাবে।’

বলদেব জিউর আখড়া শিব মন্দির দুর্গা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি জয় কে রায় বাপ্পী দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘মহামারিতে আমাদের মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক। কেউ পূজা দেখতে এসে যদি মাস্ক আনতে ভুলে যান তাহলে এটা তাকে মনে করিয়ে দিবে যে মাস্ক পরতে হবে। মাস্ক ছাড়া কেউ মণ্ডপে প্রবেশ করতে পারবেন না। নো মাস্ক, নো এন্ট্রি। তবে যারা সঙ্গে মাস্ক আনবে না তাদের মধ্যে আমরা বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ করব। এ চিন্তা থেকেই এবার মাস্ক দিয়ে মণ্ডপ সাজানো হয়েছে।’

মন্দিরের পূজারী অজয় চক্রবর্তী দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মধ্যে দিয়ে দুর্গা পূজা শুরু হবে। ২৬ অক্টোবর দেবীর বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে পূজা সমাপ্ত হবে।’

তিনি বলেন, ‘এ পৃথিবী যেন করোনা মুক্ত হয় এটাই মায়ের কাছে প্রার্থনা সকলের। আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুষ্পাঞ্জলি দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি। ভক্তদের বলে দেওয়া হয়েছে যেন সবাই মাস্ক পরেই মন্দিরে আসেন।’

নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. মুহাম্মদ ইমতিয়াজ দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজার আয়োজন করতে জেলা প্রশাসনের সভায় পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এবার সাউন্ড ও আলোকসজ্জা করা যাবে না। একসঙ্গে ২৫ জনের বেশি যেন মণ্ডপে ভিড় না করেন।’

Comments

The Daily Star  | English

Remal hits southwest coast

More than eight lakh people were evacuated to safer areas in 16 coastal districts ahead of the year’s first cyclone that could be extremely dangerous.

41m ago