শীর্ষ খবর

মিয়ানমার নির্বাচন: সংখ্যালঘুদের মানবাধিকার নিয়ে জাতিসংঘের উদ্বেগ

মিয়ানমারে আগামী ৮ নভেম্বরের সাধারণ নির্বাচনে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা ও রাখাইন জাতিগোষ্ঠীকে অংশগ্রহণ করতে না দেওয়ায়, সে দেশের রাজনৈতিক অধিকার লঙ্ঘনসহ মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ।

মিয়ানমারে আগামী ৮ নভেম্বরের সাধারণ নির্বাচনে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা ও রাখাইন জাতিগোষ্ঠীকে অংশগ্রহণ করতে না দেওয়ায়, সে দেশের রাজনৈতিক অধিকার লঙ্ঘনসহ মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ।

আজ মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ এ উদ্বেগ জানায়।

বিবৃতিতে বলা হয়, নির্বাচনকে মিয়ানমারের গণতান্ত্রিক উত্তরণের গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক হিসেবে ধরা হলেও, মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও তথ্য প্রবাহে অব্যাহত বিধিনিষেধের মাধ্যমে সেখানে নাগরিক অধিকার ক্ষুণ্ণ হচ্ছে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার রাভিনা শামদাসানী জেনেভাতে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, 'মিয়ানমারের বৈষম্যমূলক নাগরিকত্ব ও নির্বাচনী আইন বিভিন্ন শ্রেণির নাগরিককে বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক অধিকার দেয়। এটা স্পষ্টভাবে নাগরিকত্ব থেকে বঞ্চিত সংখ্যালঘুদের ওপর প্রভাব ফেলছে।'

'এছাড়া, রাখাইন রাজ্যসহ ৫৬টি শহরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে না বলে যে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে, নির্বাচন কমিশন সে সিদ্ধান্তের জন্য জনসমর্থন নেয়নি,' যোগ করেন তিনি।

রাখাইন ও চিন রাজ্যের আটটি শহরে ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ রয়েছে। এতে, ওই এলাকাগুলোতে কোভিড-১৯ ও নির্বাচনসহ অন্যান্য তথ্য পাওয়ার অধিকার সীমিত হয়ে গেছে।

রাভিনা শামদাসানী বলেন, 'আমরা (মিয়ানমার) সরকারকে কোনও ধরনের বৈষম্য ছাড়া রাজনৈতিক অধিকার নিশ্চিতের ব্যবস্থা করার আহ্বান জানাই।'

Comments

The Daily Star  | English