‘সীমিত আকারে’ ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা নিতে পারবে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়: ইউজিসি

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনাল সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের সীমিত আকারে ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা সশরীরে নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ইউজিসির এক ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনাল সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের সীমিত আকারে ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা সশরীরে নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ইউজিসির এক ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তবে, কঠোর স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মেনে দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে ছয় ফুট দূরত্ব বজায় রেখে এই ক্লাস নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয় সভায়।

ইউজিসির এক সদস্য দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষায় সর্বোচ্চ ১০ জন শিক্ষার্থীকে অংশ নিতে দেওয়া হবে এবং প্রতিদিন কেবল একটি ক্লাস অনুষ্ঠিত হবে।’

ভার্চুয়াল এ সভায় ইউজিসির চেয়ারম্যান, সদস্য ও শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ইউজিসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহিদুল্লাহ দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘স্নাতক বা স্নাতকোত্তর শ্রেণির শেষ সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষায় সশরীরে অংশ নেওয়ার অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

তিনি জানান, কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের স্নাতক শিক্ষার্থীদের পাসের জন্য ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা নেওয়ার প্রয়োজন বলে আবেদন করেছিল। তারই পরিপ্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

‘আমরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলো আবার চালু করছি না। আমরা কেবল বিশেষ পরিস্থিতিতে তাদের ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দিচ্ছি,’ যোগ করেন তিনি।

অধ্যাপক শহীদুল্লাহ জানান বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শিক্ষার্থীদের সমস্ত দায়দায়িত্ব বহন করবে।

ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক মুহম্মদ আলমগীর বলেন, ‘ব্যবহারিক ক্লাস ও পরীক্ষা না হওয়ায় ফাইনাল সেমিস্টারের শিক্ষার্থীরা স্নাতক সার্টিফিকেট পাচ্ছে না। এ কারণেই বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে।’

ইউজিসি গত মে মাসে একটি নির্দেশনায় জানায়, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শেষ সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের ৭০ শতাংশ ক্লাস শেষ হয়ে গেলে এবং তাত্ত্বিক কোর্সের জন্য অনলাইন ক্লাস পরিচালনা করলে, শিক্ষার্থীদের অনলাইনে মৌখিক পরীক্ষা ও ভার্চুয়াল প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা যাবে।

ইউজিসি জানায়, অনলাইন পরীক্ষার আগে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি, অ্যাসাইনমেন্ট, উপস্থাপনা, মিড-টার্ম পরীক্ষার ফলাফল বিবেচনা করা যেতে পারে। শেষ সেমিস্টারের ফলাফল তৈরির সময়, পূর্ববর্তী সেমিস্টারের ফলাফলও বিবেচনায় নেওয়া যেতে পারে।

তবে, এতে বলা হয় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর সব ব্যবহারিক কোর্স শ্রেণিকক্ষে শেষ করতে হবে।

Comments