বদলানো যায় পাঁচ খেলোয়াড়, মরিনহো চেয়েছিলেন ১১ জনকে!

দুর্বল প্রতিপক্ষের কাছে পরাজয় স্বীকারের পর স্বভাবসুলভ মন্তব্যে নিজের হতাশা গোপন করলেন না দলটির কোচ মরিনহো।
mourinho
ছবি: টুইটার

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরুর আগে একাদশের খোলনলচে প্রায় পাল্টে ফেললেন জোসে মরিনহো। বদল আনলেন চারটি। ম্যাচের বয়স এক ঘণ্টা হওয়ার আগে গ্যারেথ বেলকে উঠিয়ে নামালেন হ্যারি কেনকে। তাতেও ফেরার উপায় হলো না। প্রথমার্ধে হজম করা গোলে হার নিয়েই মাঠ ছাড়ল টটেনহ্যাম হটস্পার। দুর্বল প্রতিপক্ষের কাছে পরাজয় স্বীকারের পর স্বভাবসুলভ মন্তব্যে নিজের হতাশা গোপন করলেন না দলটির কোচ মরিনহো।

বৃহস্পতিবার রাতে উয়েফা ইউরোপা লিগে রয়্যাল অ্যান্টওয়ার্পের কাছে ১-০ গোলে হেরে গেছে টটেনহ্যাম। বেলজিয়ামের দলটির মাঠে পুরো ৯০ মিনিটে মাত্র দুটি শট লক্ষ্যে রাখতে পারে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দলটি। বিশেষ করে, প্রথমার্ধে তাদের পারফরম্যান্স ছিল নির্বিষ। সেসময়ে একটিবারের জন্যও অ্যান্টওয়ার্পের গোলরক্ষককে পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি স্পার্সরা।

সবশেষ ম্যাচের একাদশে পাঁচটি পরিবর্তন এনেছিলেন পর্তুগিজ কোচ মরিনহো। কিন্তু তার পরিকল্পনা ভয়াবহভাবে ব্যর্থ হয়। গত এক মাসের মধ্যে প্রথমবারের মতো শুরু থেকে খেলার সুযোগ পেয়ে হতাশ করেন জিওভানি লো সেলসো, স্টিভেন বার্গউইন, কার্লোস ভিনিসিয়ুস ও ডেলে আলি। তাদের কারও আর দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামা হয়নি।

করোনাভাইরাস বিরতির পর ফের ফুটবল শুরু হলে পাঁচ খেলোয়াড় বদলানোর নিয়ম চালু হয়েছে। কিন্তু এদিন মরিনহোর যেন তাতেও কম পড়ে গেছে! শিষ্যদের খেলায় অসন্তুষ্ট এই কোচ ম্যাচ শেষে নিজস্ব ঢঙে বলেন, ‘পারলে ১১টা (বদল) করতাম আমি। আমি (বিরতির সময়) পাঁচটা বদল করিনি এই ভয়ে যে, আরও ৪৫ মিনিট কোনো পরিবর্তন ছাড়াই আমাকে খেলতে হতো।’

তবে স্বঘোষিত ‘স্পেশাল ওয়ান’ হারের পুরো দায় নিলেন নিজের কাঁধে, ‘কেবল একজনকেই দায়ী করা যায় আর সেটা হলো আমি। কোন খেলোয়াড়রা ম্যাচ শুরু করবে তা আমি নির্বাচন করেছি। বিরতির সময় আমি পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতির চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু এটা যথেষ্ট ছিল না। প্রথমার্ধের গতি-প্রকৃতি থেকে গিয়েছিল, প্রথমার্ধের মানসিকতা থেকে গিয়েছিল এবং এসবের পরিবর্তন ঘটানো কঠিন ছিল।’

ম্যাচের ফলকে সঠিক উল্লেখ করে তিনি যোগ করেন, ‘এটা একটা ন্যায্য ফল। আমি এই বিষয়ে সবসময়ই ইতিবাচক। সেরা দল জিতেছে এবং সবচেয়ে বাজে দল হেরেছে।’

‘জে’ গ্রুপে প্রথম হারের স্বাদ পাওয়া টটেনহ্যাম দুই ম্যাচে ৩ পয়েন্ট নিয়ে আছে পয়েন্ট তালিকার দুইয়ে। সমান ম্যাচে পূর্ণ ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে অ্যান্টওয়ার্প। তিনে থাকা লাস্কের পয়েন্টও ৩। তলানির দল লুদোগোরেতস এখনও পয়েন্টের খাতা খুলতে পারেনি।

Comments