শেবাচিমে সিনিয়র চিকিৎসকের বিরুদ্ধে কমিশন বাণিজ্যের অভিযোগ ইন্টার্ন চিকিৎসকদের

বরিশালে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের (শেবাচিম) এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে কমিশন নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ইন্টার্ন চিকিৎসকরা বৃহস্পতিবার রাত ১১টা ৫৫ মিনিট থেকে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন। এতে, দুর্ভোগে পড়েন হাসপাতালে আসা রোগীরা।
স্টার ফাইল ছবি

বরিশালে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের (শেবাচিম) এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে কমিশন নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ইন্টার্ন চিকিৎসকরা বৃহস্পতিবার রাত ১১টা ৫৫ মিনিট থেকে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন। এতে, দুর্ভোগে পড়েন হাসপাতালে আসা রোগীরা।

আজ শুক্রবার হাসপাতাল পরিচালকের হস্তক্ষেপে তারা ধর্মঘট প্রত্যাহার করলেও উত্তেজনার নিরসন হয়নি।

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের অভিযোগ, সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মাসুদ খান ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে অবৈধ কমিশন নেন ছাত্রলীগ নেতাদের নাম করে। ফলে, তাদের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। এজন্য হাসপাতালের ইন্টার্ন ডক্টরস এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সজল পাণ্ডে ও সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলামের উপস্থিতিতে বিক্ষোভ কর্মসূচি শুরু করেন তারা।

ইন্টার্ন ডক্টরস এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সজল পাণ্ডে বলেন, ‘শেবাচিম হাসপাতালে যে কমিশন বাণিজ্য চলছে সেটা আমরা বন্ধের দাবি জানিয়ে আসছি। মেডিসিন বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার মাসুদ খান ইন্টার্ন ডক্টরদের নাম ভাঙিয়ে বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক থেকে কমিশন নিয়ে থাকেন। এর প্রতিবাদ করতে গেলে ইন্টার্ন ডক্টরদের বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। এ ছাড়াও, মাসুদ খান সিনিয়র চিকিৎসক ডা. জাহিদ হোসেনের কক্ষে তালা দেওয়াসহ জুনিয়র চিকিৎসক ও কর্মচারীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করে থাকেন। যে বিষয়টি লিখিত আকারে হাসপাতাল পরিচালক বরাবর দিয়েছি। কিন্তু, এই বিষয়ে কার্যকর কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। বরং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানানভাবে ইন্টার্নদের হেয় করা হচ্ছে এবং মিথ্যাচার চালানো হচ্ছে। যার প্রতিবাদ জানিয়ে আজকে ১২টা থেকে অনিদির্ষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি গিয়েছে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।’

অভিযুক্ত মেডিসিন বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মাসুদ খান বলেন, ‘বিষয়টি একবারেই সত্য নয়। পুরো ঘটনা পরিচালককে জানিয়েছি। আমি কিছু ইন্টার্ন ডাক্তারদের হাতে লাঞ্ছিত হয়ে মামলা করেছি।’

ইন্টার্ন সভাপতি ও সম্পাদকসহ ৮-১০ জন ইন্টার্ন নেতার বিরুদ্ধে কোতয়ালী থানায় হামলা ও লাঞ্ছিতের অভিযোগ মামলা করেছেন সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মাসুদ খান।

হাসপাতাল পরিচালক ডা. বাকির হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি শুনেছি। এ ব্যাপারে প্রফেসর মনিরুজ্জামান শাহীনকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। হাসপাতালের বাইরে ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে কমিশন নেওয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই।’

Comments

The Daily Star  | English

26,181 illegal structures evicted from river banks in 10 years: state minister

State Minister for Shipping Khalid Mahmud Chowdhury told parliament today that the BIWTA has taken initiatives to evict illegal structures along the border of the river ports and on the banks of the rivers

16m ago