মহাসড়কে প্রাইভেটকারে যাত্রী বহনের নামে ডাকাতি, গ্রেপ্তার ৪

মহাসড়কে প্রাইভেটকারে যাত্রী বহনের নামে ডাকাতি করার অভিযোগে চার ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) টাঙ্গাইল।
ডাকাতির জন্য ব্যবহৃত প্রাইভেটকারসহ গ্রেপ্তারকৃত চার ডাকাত। ছবি: স্টার

মহাসড়কে প্রাইভেটকারে যাত্রী বহনের নামে ডাকাতি করার অভিযোগে চার ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) টাঙ্গাইল।

আজ বুধবার দুপুরে টাঙ্গাইল পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সিরাজ আমিন এ তথ্য জানান।

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন- নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলার তেতুলিয়া গ্রামের মো. আব্দুল খালেকের ছেলে সোহেল রানা (৩৬), ভোলার ইলিশা গ্রামের মৃত দেলোয়ারের ছেলে মো. মিজান (৩৩), মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার বাসাইল উত্তর পাড়া গ্রামের মৃত সুলতানের ছেলে সাবাস (৩২) এবং নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার বান্নানাল গ্রামের মৃত হযরত আলীর ছেলে মো. রফিকুল ইসলাম (৩২)।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সিরাজ আমিন জানান, গত ২২ ডিসেম্বর ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে মাহতাব নামে এক যুবককে প্রাইভেটকারে করে সিরাজগঞ্জ নিয়ে যাওয়ার কথা বলে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার করটিয়া থেকে গাড়িতে তোলা হয়। পরে এলেঙ্গা পার হওয়ার পর প্রাইভেটকারটি ঢাকার দিকে ঘুরিয়ে মাহতাবের হাত-পা বেঁধে দুটি মোবাইল ফোন ও নগদ ৬৮০ টাকা নিয়ে নেয় ডাকাতরা। পরবর্তীতে বিকাশের মাধ্যমে আরও ২৪ হাজার টাকা নিয়ে মির্জাপুরের গোড়াই হাঁটুভাঙ্গা এলাকা থেকে তুলে কালিয়াকৈর হাইটেক পার্ক এলাকায় মাহাতাবকে নামিয়ে দিয়ে ডাকাতরা চলে যায়।

মাহতাব হোসেন টাঙ্গাইল সদর থানায় এ বিষয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

একই কায়দায় গত ২৪ ডিসেম্বর মহাসড়কের নাটিয়াপাড়া এলাকা থেকে বেলাল হোসেন নামে এক পুলিশ সদস্যের কাছ থেকে ৪৪ হাজার টাকা নেয় ডাকাত দলের সদস্যরা। এছাড়াও তার কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে আরও ২০ হাজার টাকা নেওয়া হয়।

পুলিশ সুপার বলেন, ‘আসামিরা ঢাকার গাবতলি বাসস্ট্যান্ড থেকে পাবনা পর্যন্ত একই কায়দায় ডাকাতি কার্যক্রম চালিয়ে যায়। আসামিদের ঢাকার মিরপুর, মানিকগঞ্জের দৌলতপুর ও গাজীপুরের টঙ্গী এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়। সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে তাদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।’

Comments

The Daily Star  | English

Recovering MP Azim’s body almost impossible: DB chief

Killers disfigured the body so much that it would be tough to identify those as human flesh

59m ago