বরিশালে প্রাথমিকের শতভাগ, মাধ্যমিকের ৩২ ভাগ বই পৌঁছেছে

বরিশাল জেলায় প্রাথমিক পর্যায়ে শত ভাগ বই পৌঁছালেও মাধ্যমিক পর্যায়ে মাত্র ৩২ ভাগ বই এসেছে। শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে, শিগগির মাধ্যমিক পর্যায়ের সব বই পাওয়া যাবে।
Barishal_New_Book_1Jan21.jpg
নতুন বই পেয়ে আনন্দিত বরিশাল হালিমা খাতুন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ছবি: স্টার

বরিশাল জেলায় প্রাথমিক পর্যায়ে শত ভাগ বই পৌঁছালেও মাধ্যমিক পর্যায়ে মাত্র ৩২ ভাগ বই এসেছে। শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে, শিগগির মাধ্যমিক পর্যায়ের সব বই পাওয়া যাবে।

আজ শুক্রবার সকাল থেকে সারা দেশে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের হাতে বিনা মূল্যের পাঠ্যবই তুলে দেওয়া হয়। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এ বছর বই উৎসব বাতিল করা হয়েছে।

বরিশাল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, জেলার এক হাজার ৫৯৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা দুই লাখ ৩২ হাজার। এসব প্রতিষ্ঠানে ১২ লাখ ৯৩ হাজার বইয়ের চাহিদা দেওয়া হয়েছিল। সে অনুযায়ী, শতভাগ বই চলে এসছে। আজ বিকালের মধ্যে ৮০ ভাগ বই বিতরণ করা হবে। যেসব বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি, সেসব বিদ্যালয়ে দুই দিনে বই বিতরণ করতে বলা হয়েছে।

নগরীর মাতৃমন্দির সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিন্টু কুমার কর দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘আমরা চাহিদা অনুযায়ী বই পেয়েছি। শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেওয়া হয়েছে। নতুন বই পেয়ে তারা আনন্দিত, আমাদেরও ভালো লাগছে।’

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানিয়েছে, জেলার ৭০৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এক লাখ ৯৪ হাজার ৫৩৪ শিক্ষার্থীর জন্য ২৮ লাখ ১৯ হাজার ১৯০টি বইয়ের চাহিদা জানানো হয়েছিল। এর মধ্যে নয় লাখ ২১ হাজার ৮৪৩টি বই পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বরিশাল সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিথীকা সরকার দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘৬ষ্ঠ শ্রেণির বই পাওয়া গেছে, অন্যান্য ক্লাসের সব বই পাওয়া যায়নি। আমরা আশা করছি, বাকি বইগুলো দ্রুতই চলে আসবে।’

জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান বলেন, ‘বরিশালে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে বই বিতরণ করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে জোর দেওয়া হয়েছে।’

Comments

The Daily Star  | English

Banks sell dollar at more than Tk 118 as pressure mounts

The chief executives of at least three private commercial banks told The Daily Star that the BB had verbally allowed them to quote Tk 1 more than the exchange rate to collect US dollars amid the ongoing forex crunch.

3h ago