পুলিশ স্কুলছাত্রীর বয়স বেশি দেখাতে চেয়েছিল, অভিযোগ মায়ের

রাজধানীর কলাবাগানে ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল মাস্টারমাইন্ডের শিক্ষার্থী মৃত্যুর ঘটনায় পুলিশ ওই শিক্ষার্থীর বয়স বেশি দেখাতে চেয়েছিল বলে অভিযোগ করেছেন মেয়েটির মা।
rape victim logo
প্রতীকী ছবি। স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

রাজধানীর কলাবাগানে ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল মাস্টারমাইন্ডের শিক্ষার্থী মৃত্যুর ঘটনায় পুলিশ ওই শিক্ষার্থীর বয়স বেশি দেখাতে চেয়েছিল বলে অভিযোগ করেছেন মেয়েটির মা।

শনিবার কুষ্টিয়ায় পারিবারিক কবরস্থানে মেয়েকে দাফনের পর তার মা সাংবাদিকদের কাছে এই অভিযোগ করেন।

ওই শিক্ষার্থীর মা বলেন, ‘হাসপাতালে নেওয়ার পর মেয়ের হত্যাকারী দিহান তার মেয়ের বয়স "১৯ বছর" উল্লেখ করেছিল। পুলিশ সেটাই ধরছিল।’ মেয়ের বয়সের প্রমাণপত্র দেখালেও পুলিশ তা আমল নিচ্ছিল না বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মেয়েটির মা বলেন, ‘আমরা সুরতহাল রিপোর্টের বয়স নিয়ে আপত্তি তুলি এসময় পুলিশ মর্গে লাশ ফেলে রেখেছিল বিকাল পর্যন্ত।’

তিনি জানান, ‘তার মেয়ের জন্মের পর ইস্যুকৃত টিকা কার্ড, স্কুল কার্ড এবং সর্বশেষ পাসপোর্টে তার মেয়ের জন্ম তারিখ ২০০৩ সালের ৯ অক্টোবর লেখা আছে। সে হিসেবে মৃত্যুর সময় বয়স হয় ১৭ বছর ৩ মাস।

‘পরদিন শুক্রবার বয়স প্রমাণের জন্য লাশ নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় পরীক্ষা করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় পুলিশ। এরপর বিকাল সাড়ে ৫টায় ময়নাতদন্ত শেষ করে আমাদের কাছে লাশ হস্তান্তর করে।’

এ বিষয়ে কলাবাগান থানার উপ-পরিদর্শক জাকির হোসেন যিনি ওই শিক্ষার্থীর সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেছিলেন, তিনি জানান, সুরতহাল প্রতিবেদনে ১৯ বছর লেখা হয়েছিল কারণ আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতাল থেকে পাওয়া রিসিভ কপিতে বয়স ১৯ লেখা ছিল।

আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. আসির ইনতিসার বলেন, ‘আসামি দিহানের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ১৯ লেখা হয়েছিল প্রথমে। পরে শিক্ষার্থীর মা মরদেহ নেওয়ার সময় ডেথ সার্টিফিকেটে জন্মসাল ও পাসপোর্ট অনুযায়ী ২০০৩ সাল লিখে দেওয়া হয়েছে।’

গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর কলাবাগানে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে কলাবাগান থানায় মামলা করেন ওই শিক্ষার্থীর বাবা। গতকাল শুক্রবার ময়নাতদন্তের পর ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেসনিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে মৃত্যু হয়েছে ওই শিক্ষার্থীর।

আরও পড়ুন-

কুষ্টিয়ায় শিক্ষার্থীর দাফন, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি এলাকাবাসীর

‘ধর্ষকের বিচারের ক্ষেত্রে যেন অন্য কোনো প্রভাব প্রশ্রয় না পায়’

অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে শিক্ষার্থীর মৃত্যু: ফরেনসিক চিকিৎসক

শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যা: আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ: আসামির ১০ দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ

‘ধর্ষণের বিষয়টি লুকাতে নেওয়া হয়েছিল হাসপাতালে’

কলাবাগানে ‘ও’ লেভেলের শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

 

Comments

The Daily Star  | English

Israeli occupation 'affront to justice'

Arab states tell UN court; UN voices alarm as Israel says preparing for Rafah invasion

1h ago