মেসি-গ্রিজমানের নৈপুণ্যে গ্রানাদাকে উড়িয়ে দিলো বার্সেলোনা

লা লিগায় টানা তৃতীয় জয়ের দেখা পেল বার্সেলোনা।
barcelona granada
ছবি: টুইটার

স্বরূপে ফেরা লিওনেল মেসি আবার পেলেন জোড়া গোলের স্বাদ। আঁতোয়ান গ্রিজমানও করলেন সমান সংখ্যক গোল। পাশাপাশি তিনি অবদান রাখলেন সতীর্থের গোলেও। তাদের নৈপুণ্যে গ্রানাদাকে উড়িয়ে লা লিগায় টানা তৃতীয় জয়ের দেখা পেল বার্সেলোনা।

শনিবার রাতে প্রতিপক্ষের মাঠ লস কারমেনেসে ৪-০ গোলে জিতেছে রোনাল্ড কোমানের শিষ্যরা। স্পেনের শীর্ষ লিগে সবশেষ আট ম্যাচে এটি তাদের ষষ্ঠ জয়। পারফরম্যান্সের গ্রাফের এই উন্নতিতে পয়েন্ট তালিকার তিন নম্বরে উঠে এসেছে মৌসুমের শুরুতে ধুঁকতে থাকা দলটি।

ফল একপেশে হলেও প্রথমার্ধে উজ্জীবিত ফুটবল খেলে স্বাগতিকরা। গোটা ম্যাচে বার্সেলোনার গোলমুখে তারা নেয় আটটি শট। এর মধ্যে লক্ষ্যে ছিল চারটি। কিন্তু গোলের দেখা পায়নি গ্রানাদা। অন্যদিকে, সফরকারীদের নেওয়া ১৩ শটের মধ্যেও লক্ষ্যে ছিল চারটি।

দ্বিতীয় মিনিটেই পিছিয়ে পড়তে পারত বার্সা। ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের ভুলে বল পেয়ে আক্রমণে ওঠা গ্রানাদার আন্তোনিও পুয়ের্তাস শট ঝাঁপিয়ে রুখে দেন গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

এর মিনিট দশেক পর এগিয়ে যায় কাতালানরা। সার্জিও বুসকেতসের বাড়ানো বল গ্রানাদার রবার্তো সলদাদোর গায়ে লাগার পর ডি-বক্সের ভেতরে পেয়ে যান গ্রিজমান। বাঁ পায়ের শটে বল জালে পাঠান ফরাসি ফরোয়ার্ড। সহকারী রেফারি প্রথমে অফসাইডের পতাকা তুললেও পরে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়।

চার মিনিট পর উসমান দেম্বেলের ডান পায়ের কোণাকুণি শট পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে গেলে ব্যবধান বাড়ানো হয়নি বার্সার। কিছু সময় পর সার্জিনো দেস্তের ক্রস পোস্টের অনেক উপর দিয়ে উড়িয়ে মেরে আরেকটি সুযোগ হাতছাড়া করেন তিনি।

messi griezmann
ছবি: টুইটার

এসময় সমতায় ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে গ্রানাদা। নিশ্চিত সুযোগ তৈরি করতে না পারলেও বার্সেলোনার রক্ষণভাগকে ব্যতিব্যস্ত রাখে দলটি। কিন্তু তাদের লড়াইয়ে ফেরার আশা শেষ হয়ে যায় ৩৫তম মিনিটে। গ্রিজমানের পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডি-বক্সের ভেতরে ঢুকে পা পায়ের শটে প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক রুই সিলভাকে পরাস্ত করেন মেসি।

সাত মিনিট পর ব্যবধান আরও বাড়ান আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। নিখুঁত ফ্রি-কিকে চলতি লা লিগায় নিজের একাদশ গোলটি করেন মেসি। তিনিই এখন অবস্থান করছেন আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকার চূড়ায়। আর ফ্রি-কিক থেকে গত জুলাইয়ের পর প্রথমবারের মতো লক্ষ্যভেদ করেন ৩৩ বছর বয়সী তারকা।

বিরতির পর ৫১তম মিনিটে পুয়ের্তাসের আরেকটি দুর্বল প্রচেষ্টা রুখে দেন টের স্টেগেন। পাঁচ মিনিট পর বার্সার ডাচ মিডফিল্ডার ডি ইয়ংয়ের শট লক্ষ্যে থাকেনি। ৬৩তম মিনিটে আর হতাশ হতে হয়নি অতিথিদের। স্বদেশি দেম্বেলের চিপ বাঁ পায়ের প্রথম ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডান পায়ের শটে দুরূহ কোণ থেকে জাল কাঁপান গ্রিজমান।

বড় জয় নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় মেসিকে তুলে নেন কোমান। তারপরও গ্রানাদার দুর্দশা শেষ হয়নি। ৭৮তম মিনিটে মার্টিন ব্র্যাথওয়েটকে ফাউল করে সরাসরি লাল কার্ড দেখেন হেসুস ভালেহো। এরপর অবশ্য ম্যাচে আর কোনো উল্লেখযোগ্য কিছু ঘটেনি।

১৮ ম্যাচে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে লা লিগায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে বার্সেলোনা। সমান ম্যাচে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ। শীর্ষে থাকা অ্যাতলতিকো মাদ্রিদের পয়েন্ট ৩৮। তবে তারা তিন ম্যাচ কম খেলেছে।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Where Horror Abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital.

7h ago