শীর্ষ খবর

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা করলে কঠোর ব্যবস্থা: রিটার্নিং অফিসার

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান। আজ মঙ্গলবার তার কার্যালয়ে দ্য ডেইলি স্টার’র সঙ্গে আলাপকালে হাসানুজ্জামান এ কথা বলেন।
Hasanuzzaman_RO_CTG_26Jan21.jpg
রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান | ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান। আজ মঙ্গলবার তার কার্যালয়ে দ্য ডেইলি স্টার’র সঙ্গে আলাপকালে হাসানুজ্জামান এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘ভোটাররা যেন নির্ভয়ে কেন্দ্রে গিয়ে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারেন এবং নিরাপদে ঘরে ফিরতে পারেন— সে জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনি এলাকায় নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করেছে কমিশন। আমরা প্রত্যাশা করছি, আগামীকাল উৎসবমুখর পরিবেশে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার আশঙ্কা নেই।’

এক প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান বলেন, ‘মোট ৭৩৫টির মধ্যে ৪১৬টি কেন্দ্র গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে নির্বাচন কমিশন। এই কেন্দ্রগুলোতে ১৮ জন করে আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। বাকি ৩১৯টি সাধারণ কেন্দ্রের প্রতিটিতে ১৬ জন আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচনি এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব), পুলিশ এবং আনসার সদস্যসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দেড় হাজার সদস্য মোতায়েন করা হবে। এর মধ্যে সাত হাজার ৭৭২ জন পুলিশ সদস্য, ২৫ প্লাটুন বিজিবি, চার হাজার আনসার সদস্য, র‌্যাবের ৪১টি টিম এবং তিন জন ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে র‌্যাবের তিনটি বিশেষ টিম কাজ করবে। এ ছাড়া, ৬৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং ২০ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবেন। প্রত্যেক জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দুটি করে ওয়ার্ডের দায়িত্বে থাকবেন।’

‘সকালে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনসহ (ইভিএম) প্রয়োজনীয় নির্বাচনি উপকরণ বিভিন্ন কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসারদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। মোট চার হাজার ৮৮৬টি বুথের জন্য সমসংখ্যক ইভিএম দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া, জরুরি পরিস্থিতি বিবেচনায় ৭৩৫টি ইভিএম সংরক্ষণ করা হয়েছে’— বলেন রিটার্নিং অফিসার।

Comments