শীর্ষ খবর

সাড়ে ৫ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে ফেরি চলাচল শুরু

ঘন কুয়াশার কারণে সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ও মাদারীপুরের বাংলাবাজার নৌপথে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টা থেকে এ নৌপথে নৌযান চলাচল স্বাভাবিক হয়।
সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা পর ফেরি চলাচল শুরু। ছবি: স্টার

ঘন কুয়াশার কারণে সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ও মাদারীপুরের বাংলাবাজার নৌপথে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টা থেকে এ নৌপথে নৌযান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এর আগে ভোর ৪টা থেকে এ নৌপথে বন্ধ ছিল ফেরি চলাচল। টানা সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় উভয় ঘাটে আটকা পড়েছে অন্তত আট শতাধিক যানবাহন। এতে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন এই পথে আসা যাত্রী ও পরিবহনশ্রমিকেরা।

বাংলাবাজার ঘাটে আটকা পড়া যাত্রী কাশেম রিফাত হোসেন বলেন, ‘বরিশাল থেকে রাতের গাড়িতে ঢাকা যাওয়ার জন্য উঠেছি। ভোর সাড়ে ৪টার সময় বাস ঘাটে এসে লাইনে আটকা পড়ে। তারপর টানা পাঁচ ঘণ্টা বাসের মধ্যে। একদিকে তীব্র শীত, অন্যদিকে দুর্ভোগ।

শিমুলিয়া ঘাটের আটকা পড়া মাদারীপুরগামী যাত্রী মনির হোসেন বলেন, ‘সকাল ৬টায় ঘাটে এসে দেখি কুয়াশার কারণে কোনো নৌযান চলছিল না। ঘাটে যানবাহনের সঙ্গে মানুষের চাপ বেড়েই চলছিল। পরে সাড়ে ৯টার দিকে ফেরি চলাচল শুরু হয়।’

শিমুলিয়া ঘাটের টার্মিনালে আটকা পড়া পণ্যবাহী ট্রাকের চালক রতন হোসেন বলেন, ‘রাত ২টা থেকে গাড়ির লাইনে অপেক্ষায় ছিলাম। ফেরির কাছে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর জানতে পারি কুয়াশার কারণে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। শীতের মধ্যে ঘণ্টার পর ঘণ্টা টার্মিনালে বসে থেকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।’

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মোহাম্মদ ফয়সাল দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘বহরের ১৭টি ফেরির মধ্যে ১৫টি ফেরি চলাচল শুরু করেছে। ঘন কুয়াশার কারণে বিকন বাতি ও মার্কিং পয়েন্টের কিছুই দেখা যাচ্ছিল না। তাই দুর্ঘটনা এড়াতে ভোরে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দিতে হয়। দীর্ঘ সময় ফেরি বন্ধ থাকায় শিমুলিয়া ঘাটে অপেক্ষা করছে চার শতাধিকের বেশি যানবাহন। তবে, কুয়াশা কেটে যাওয়ায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে।’

বিআইডব্লিউটিসির বাংলাবাজার ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক জামিল হোসেন দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘টানা কয়েক ঘণ্টা ফেরি পারাপার বন্ধ থাকায় পাড়ে ও সংযোগ সড়কে বেশ কিছু যানবাহন আটকা পড়েছে। দুই ঘাট মিলিয়ে আট শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় আছে। যানবাহনগুলো পর্যায়ক্রমে ফেরিতে পারাপার করা হচ্ছে।’

Comments

The Daily Star  | English

Fewer but fiercer since the 90s

Though Bangladesh is experiencing fewer cyclones than in the 1960s, their intensity has increased, a recent study has found.

6h ago