পুড়ে গেছে শহীদ লে. কমান্ডার মোয়াজ্জেম হোসেনের বাড়ি

আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার দুই নম্বর আসামি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মোয়াজ্জেম হোসেনের পিরোজপুরে স্মৃতি বিজড়িত বাড়ি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।
Pirojpur.jpg
ভোরে পিরোজপুর সদর উপজেলার পশ্চিম ডুমরিতলা গ্রামের এ বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ছবি: সংগৃহীত

আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার দুই নম্বর আসামি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মোয়াজ্জেম হোসেনের পিরোজপুরে স্মৃতি বিজড়িত বাড়ি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

আজ শুক্রবার ভোরে পিরোজপুর সদর উপজেলার পশ্চিম ডুমরিতলা গ্রামের এ বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে বলে পিরোজপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার আবু জাফর নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, সকাল ৮টার দিকে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছায় এবং দুই ঘণ্টা চেষ্টায় তারা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এর আগেই পুড়ে ছাই হয়ে যায় ঐতিহ্যবাহী পুরনো সে ঘরটি।

ঘরে কেউ বসবাস না করায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলে জানান আবু জাফর।

তিনি আরও জানান, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে আগুন লাগতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে তদন্তের পর আগুন লাগার মূল কারণ জানা যাবে।

মোয়াজ্জেম হোসেনের ছোট ভাই মাহামুদুর রহমান টুনু জানান, সকালে ঘরটিতে আগুন লাগার খবর পেয়ে তারা তাৎক্ষণিকভাবে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন।

১৯৬৭ সালের আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার অন্যতম আসামি লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মোয়াজ্জেম হোসেনকে ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ ভোরে কর্নেল তাজের নেতৃত্বে একটি পাকিস্তানি সেনাদল এলিফ্যান্ট রোডের বাসায় হামলা চালিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। তার মরদেহ সামরিক জিপের পেছনে রশি দিয়ে বেঁধে রাস্তা দিয়ে টেনে ঢাকা সেনানিবাসে নেওয়া হয়। পরে তার মরদেহ পাওয়া যায়নি।

একাত্তরে স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মত্যাগের জন্য ২০১২ সালে তাকে স্বাধীনতা পদক (মরণোত্তর) দেওয়া হয়।

Comments