খেলা

টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, একাদশে এক পেসার

অতি টার্নিং উইকেটের আভাস থাকায় একাদশে একমাত্র পেসার হিসেবে মোস্তাফিজুর রহমানকে রেখেছে টিম ম্যানেজমেন্ট।
Toss
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

উইকেট আর প্রেক্ষাপট বিবেচনায় টসটা ছিল ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। নিচু বাউন্স আর মন্থর গতির উইকেটে শেষ ইনিংসে ব্যাট করার চ্যালেঞ্জ নিবে না কেউ। স্পিনারদের জন্য সহায়ক পরিবেশে কাঙ্খিত টস জিতে অনুমিতভাবেই আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

অতি টার্নিং উইকেটের আভাস থাকায় একাদশে একমাত্র পেসার হিসেবে মোস্তাফিজুর রহমানকে রেখেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। অবশ্যই একাদশে আছেন চার স্পিনার। বাকি জায়গাগুলো নিয়ে কোন দ্বিধা ছিল না। তামিম ইকবাললের ওপেনিং সঙ্গী হিসেবে নামবেন সাদমান ইসলামই।

বাংলাদেশ স্পিনার দিয়ে একাদশ সাজালেও উইন্ডিজ তাদের একাদশে ঠিকই তিন পেসার রেখেছে। শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, কেমার রোচের সঙ্গে আছেন অভিষিক্ত পেস অলরাউন্ডার কাইল মেয়ার্সও। স্কোয়াডে আরেকজন স্পিনার থাকলেও উইন্ডিজ কেবল রাহকিম কর্নওয়েল আর জোমেল ওয়ারিকনকেই খেলাচ্ছে।  

বাংলাদেশ একাদশ:  তামিম ইকবাল, সাদমান ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, তাইজুল ইসলাম, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাঈম হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান।

উইন্ডিজ একাদশ: ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট, জন ক্যম্পবেল, জার্মেইন ব্ল্যাকউড, শেইন মোসলি, এনক্রুমা বোনার, জশুয়া ডি সিলভা, কাইল মেয়ার্স, রাহকিম কর্নওয়েল, কেমার রোচ, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, জোমেল ওয়ারিকন। 

লম্বা বিরতির পর আবার টেস্ট

গত বছর এই ফেব্রুয়ারি মাসেই করোনাভাইরাস মহামারি আকার নেওয়ার ঠিক আগে আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সব শেষ টেস্ট খেলেছিল বাংলাদেশ। সময়ের হিসেবে ঠিক ৩৪৭ দিন পর আবার টেস্ট খেলতে নামলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

এই এক বছরে কোন টেস্ট তো দূরে থাক বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা খেলেননি প্রথম শ্রেণীর কোন ম্যাচও। টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পর লাল বলে এতটা লম্বা বিরতি আর হয়নি। এই বিরতি নিশ্চয়ই একটা টেস্ট দলের জন্য স্বস্তির নয়।

তবে ঘরের মাঠ হওয়ায় এই জড়তা কাটিয়ে নিজেদের সেরা ফল বের করার ব্যাপারে তারা আত্মবিশ্বাসী বলে জানান অধিনায়ক মুমিনুল হক। 

Comments

The Daily Star  | English
Personal data up for sale online!

Personal data up for sale online!

Some government employees are selling citizens’ NID card and phone call details through hundreds of Facebook, Telegram, and WhatsApp groups, the National Telecommunication Monitoring Centre has found.

12h ago