শেষ হলো প্রথম দিনের দেশব্যাপী টিকাদান কর্মসূচি

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আজ রোববার সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারা দেশে একযোগে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। বিকাল ৪টার দিকে দেশের টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে প্রথম দিনের করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া শেষ হয়। প্রথম দিনে টিকা নিয়েছেন দেশের বিভিন্ন জেলার নিবন্ধিত ব্যক্তিরা। দ্য ডেইলি স্টারের জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যেরভিত্তিতে বিভিন্ন জেলার টিকাদান কর্মসূচির প্রথম দিনের চিত্র তুলে ধরা হলো এখানে।
মানিকগঞ্জে আজ সকালে শুরু হয় টিকাদান কর্মসূচি। ছবি: স্টার

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আজ রোববার সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারা দেশে একযোগে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। বিকাল ৪টার দিকে দেশের টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে প্রথম দিনের করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া শেষ হয়। প্রথম দিনে টিকা নিয়েছেন দেশের বিভিন্ন জেলার নিবন্ধিত ব্যক্তিরা। দ্য ডেইলি স্টারের জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যেরভিত্তিতে বিভিন্ন জেলার টিকাদান কর্মসূচির প্রথম দিনের চিত্র তুলে ধরা হলো এখানে।

টাঙ্গাইলে প্রথম দিনে টিকা নিয়েছেন ৯৭৬ জন  

টাঙ্গাইল জেলায় প্রথম দিন করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়েছেন মোট ৯৭৬ জন। টাঙ্গাইল ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নয়টি বুথসহ জেলার ১২টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৩টি করে মোট ৪২টি বুথে কেন্দ্রে নিবন্ধিত ব্যক্তিদের এই টিকা দেওয়া হয়।

টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডাঃ আবুল ফজল মো. শাহাবুদ্দিন খান সন্ধ্যায় দ্য ডেইলি স্টারকে এই নিশ্চিত করেন।

টাঙ্গাইল ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে জেলা প্রশাসক ডক্টর আতাউল গনির শরীরে প্রথম ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়।

জেলায় মোট ১ লাখ ২০ হাজার ডোজ করোনা ভ্যাকসিন মজুদ রয়েছে। পর্যায়ক্রমে নিবন্ধিত ব্যক্তিদের এ টিকা দেওয়া হবে।

মুন্সিগঞ্জে করোনা টিকা নিয়েছেন ১৮০ জন

মুন্সিগঞ্জের ছয় উপজেলাতে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে। জেলার দুই আসনের সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলিসহ চিকিৎসক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীরা প্রথম টিকা গ্রহণের মধ্য দিয়ে টিকা কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথমদিনে জেলাতে টিকা গ্রহণ করেছেন ১৩৪ জন পুরুষ ও ৪৬ জন নারী। টিকা গ্রহণকারীরা সবাই সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

টিকা গ্রহণকারী ১৮০ জনের মধ্যে মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলায় ৪৭ জন, টংগিবাড়ি উপজেলায় ২৯ জন, লৌহজং উপজেলায় ২৮ জন, গজারিয়া উপজেলায় ১৬ জন, শ্রীনগর উপজেলায় ২০ জন, সিরাজদিখান উপজেলায় ৪০ জন।

পটুয়াখালীতে টিকা নিয়েছেন ২৯৭ জন

পটুয়াখালী জেলার ৮টি হাসপাতালের ২৬টি কেন্দ্রে করোনার টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। রোববার প্রথম দিনে জেলায় মোট ২৯৭ জন নারী-পুরুষ এ টিকা নিয়েছেন। এর মধ্যে পুরুষ ২০৮ জন এবং নারী ৮৯ জন। পুলিশ হাসপাতালে এক নারী পুলিশসহ মোট ২০ জন প্রথম দিনে এ টিকা গ্রহণ করেন।

এর আগে, সকাল ১০টায় পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য কাজী কানিজ সুলতানা হেলেন।

পটুয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম শিপন এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন প্রথম দিনেই ভালো সারা পাওয়া গেছে এবং টিকা নিয়ে কোন ভীতি নেই।

নোয়াখালীতে টিকা নিয়েছেন ৪৬৯ জন

নোয়াখালী জেলায় টিকাদান কর্মসূচির প্রথম দিনে টিকা নিয়েছেন ৪৬৯ জন। এর আগে, আজ সকালে নোয়াখালী সদর-সুবর্ণচর আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী নিজে টিকা গ্রহণ করে জেলায় টিকাদান কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। রোববার সকাল ১০টায় ২৫০শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের নির্ধারিত বুথে তিনি টিকা নেন।

২৫০ শয্যা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ২২০ জনকে এবং পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে ৫০ জনকে টিকা দেওয়া হয়। টিকা দিতে জেলায় ১০টি কেন্দ্রে ৩৩টি বুথ খোলা হয়।

চাঁদপুরে ১৫৪ জনকে টিকাদান

সারাদেশের মতো চাঁদপুরেও আজ টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। রোববার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত জেলার ৮টি কেন্দ্রে ১৫৪ জন নারী-পুরুষকে টিকা দেওয়া হয়। এর মধ্যে ১১৮জন পুরুষ ও ৩৬জন নারীকে এই টিকা দেওয়া হয়। এর মধ্যে চাঁদপুর সদরে সকাল ১১টায় ২৫০ শয্যা চাঁদপুর সদর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে প্রথম করোনা টিকা নেন জেলা প্রশাসক বেগম অঞ্জনা খান মজ‌লি‌শ।

চাঁদপুরে প্রথম টিকা গ্রহণকারী জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলি বলেন, ‘আমরা ছোট‌বেলা থে‌কে অনেক টিকা নিয়ে‌ছি। তখন যেমন লেগেছে আজও টিকা নেওয়ার পর তেমনই লেগে‌ছে। কোনো ব‌্যথা অনুভূত হয়‌নি। আমি মনে করি কোনো ভয় ছাড়াই সবাই টিকা নিতে পারেন।’

ঠাকুরওগাঁয়ে টিকা নিয়েছেন ২৭৪ জন

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেনকে টিকাদানের মধ্য দিয়ে জেলায় করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। প্রথম দিনে এ জেলায় ২৭৪ জন টিকা নিয়েছেন।

জেলা সিভিল সার্জন মাহফুজার রহমান সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

টিকা নেওয়ার পরে রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, ‘টিকা নিয়ে অনেক কথা শুনেছি। কিন্তু, টিকা দেওয়ার পর সেসবের কিছুই অনুভব করছি না। আমার একটুও শারীরিক সমস্যা হচ্ছে না। তাই গুজবে কান না দিয়ে সবাইকে টিকা গ্রহণে নিবন্ধন করতে অনুরোধ করছি।’

সাতক্ষীরায় টিকা নিয়েছেন ৩১৭ জন

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল প্রথম টিকা নিয়ে সাতক্ষীরায় কোভিড-১৯-এর ভ্যাকসিন কর্মসূচি শুরু করেন। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে রোববার দুপুর ১২টার সময় টিকা নেন তিনি। টিকাদান কর্মসূচির প্রথম দিনে এ জেলায় মোট ৩১৭ জন টিকা নিয়েছেন। এরমধ্যে ২৮১ জন পুরুষ এবং ৩৬ জন নারী।

সিভিল সার্জন হুসাইন সাফায়েত জানান, সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ ছয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রোববার থেকে কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। একটানা ১২ দিন এ কার্যক্রম চলবে। প্রতি হাসপাতালে ১৬ জন সেবিকা ও ৩২ জন স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছে।

সাভারে টিকা নিলেন জিওসিসহ একশ সেনা কর্মকর্তা

সারা দেশে করোনা টিকাদান কর্মসূচির শুরুর দিনে সেনাবাহিনীর নবম পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মোহাম্মদ শাহিনুল হক টিকা নিয়েছেন। এদিন পর্যায়ক্রমে একশ সেনা কর্মকর্তাকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়। রোববার সকাল সাড়ে ৯টায় সাভার সেনানিবাসের সিএমএইচ হাসপাতালে টিকা প্রদান কর্মসূচি উদ্বোধন করেন জিওসি ও নবম পদাতিক ডিভিশনের এরিয়া কমান্ডার।

সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়, কোভিড-১৯  ভ্যাকসিন কার্যক্রমের উদ্বোধনের শুরুতে জিওসি টিকা নেন। এরপর পর্যায়ক্রমে উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তাসহ অফিসাররা টিকা নেন। আজ মোট একশ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে।

টিকা গ্রহণ শেষে গণমাধ্যমকে জিওসি বলেন, ‘আমরা সবসময় আমাদের ডাক্তার ও অথরিটির ওপর ভরসা করে আমাদের যাবতীয় কার্যক্রম নিশ্চিন্ত মনে করে এসেছি। এখনো তাদের ওপর আমাদের বিশ্বাস আছে। এখানে ভয়ের কিছুই না।’

সাভার ও ধামরাইয়ে টিকা নিলেন ৫৩ জন

করোনার টিকাদান কর্মসূচির প্রথম দিনে ঢাকা জেলার সাভার ও ধামরাই উপজেলায় মোট ৫৩ জন টিকা নিয়েছেন। সাভার ও ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছ।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইসএফপিও) ডা. সায়েমুল হুদা দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, তিনিসহ মোট ৩৭ জন টিকা গ্রহণ করেছেন। এদের মধ্যে ১১ জন নারী আছেন। টিকা গ্রহণকারীদের মধ্যে অধিকাংশই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক, নার্স ও স্টাফ।

অপরদিকে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, ডা. নূর রিফফাত আরা দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ধামরাই থেকে তিনি ও ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতিকুর রহমানসহ মোট ১৬ জন টিকা গ্রহণ করেছেন। এদের মধ্য পাঁচ জনের বয়স ৫৫ বছরের ওপরে।

নেত্রকোনায় প্রথম টিকা নেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

নেত্রকোনায় টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন ও সিভিল সার্জন অফিসের উদ্যোগে আজ নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রথম টিকা গ্রহণ করেন নেত্রকোনা-২ আসনের এমপি সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আশরাফ আলী খান খসরু। পরবর্তীতে টিকা গ্রহণ করেন নেত্রকোনা-৩ আসনের এমপি অসীম কুমার উকিল, জেলা প্রশাসক কাজি মো. আবদুর রহমান, পুলিশ সুপার আকবর আলী মুন্সি ও সিভিল সার্জন ডা. মো. সেলিম মিয়া।

সিভিল সার্জন ডা. মো. সেলিম মিয়া জানান, নেত্রকোনায় ৭২ হাজার টিকা এসেছে। প্রত্যেককে ২ ডোজ করে ৩৬ হাজার ব্যক্তিকে এই টিকা প্রদান করা হবে। এ পর্যন্ত  জেলায় ৩ হাজার ৪ শত ৪১ জন ব্যক্তি নিবন্ধিত হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জে প্রথম দিনে টিকা নিলেন ২২৪ জন

নারায়ণগঞ্জের ৬টি কেন্দ্রে প্রথম দিনে করোনার টিকা নিয়েছেন ২২৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১০৬ জন ও নারী ৪২ জন। রোববার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল, ৩০০ শয্যা হাসপাতাল ও ৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক সঙ্গে টিকাদান শুরু হয়। বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলে এ টিকাদান কার্যক্রম।

রাতে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা ও জেলা করোনা বিষয়ক ফোকাল পারসন ডা. জাহিদুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘কোথাও কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার খবর পাওয়া যায়নি। টিকা যারা নিয়েছেন সবাই সুস্থ আছেন। এখনো যারা নিবন্ধন করেননি সবাই নিবন্ধন করে টিকা নিন।’

আরও পড়ুন:

Comments

The Daily Star  | English

Mangoes and litchis taking a hit from the heat

It’s painful for Tajul Islam to see what has happened to his beloved mango orchard in Rajshahi city’s Borobongram Namopara.

14h ago