খেলা

এই ফল ম্যাচের প্রকৃত চিত্র ফুটিয়ে তুলছে না, মত কোমানের

সেভিয়ার কাছে হেরে কোপা দেল রের ফাইনালে ওঠার পথ কঠিন করে ফেলেছে বার্সেলোনা।
messi sevilla
ছবি: টুইটার

সেভিয়ার কাছে হেরে কোপা দেল রের ফাইনালে ওঠার পথ কঠিন করে ফেলেছে বার্সেলোনা। তবে কাতালান ক্লাবটির কোচ রোনাল্ড কোমান মনে করছেন, ম্যাচের এই ফল মোটেও ন্যায্য নয়। সেভিয়া প্রাপ্যের চেয়ে বেশি পেয়েছে উল্লেখ করে তিনি কাঠগড়ায় তুলেছেন ম্যাচ অফিসিয়ালদেরও।

বুধবার রাতে প্রতিযোগিতার সেমিফাইনালের প্রথম লেগে সেভিয়ার মাঠে ২-০ গোলে হেরেছে বার্সা। প্রথমার্ধে রক্ষণভাগের দুর্বলতায় জুল কুন্দের গোলে পিছিয়ে পড়ে তারা। দ্বিতীয়ার্ধের শেষদিকে ব্যবধান বাড়ান বার্সেলোনারই সাবেক মিডফিল্ডার ইভান রাকিতিচ। তাতে ফিকে হয়ে গেছে কোমানের শিষ্যদের শিরোপা নির্ধারণী মঞ্চে জায়গা করে নেওয়ার স্বপ্ন।

আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে পূর্ণ ম্যাচে বল দখলে কিছুটা এগিয়ে ছিল বার্সা। গোলমুখে শট নেওয়াতেও তারা দেখায় প্রাধান্য। কিন্তু ইয়াসিন বোনোর প্রতিরোধে কোনো ফাটল ধরাতে পারেননি দলটি। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসিকেই গোটা ম্যাচে তিনবার হতাশ করেন সেভিয়ার এই গোলরক্ষক।

ম্যাচ শেষে তাই আক্ষেপ গোপন করেননি কোমান, ‘এটা এমন একটা ফল, যেখানে তারা (সেভিয়া) খুব বেশি পুরস্কৃত হয়েছে। আমরা বার্সাকে ভালো খেলতে দেখেছি, অনেকগুলো পরিষ্কার সুযোগ তৈরি করতে দেখেছি। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা প্রতিপক্ষকে প্রচুর চাপ প্রয়োগ করেছি। আমি (আমার) দলকে দোষারোপ করতে পারি না। এখনও একটা ম্যাচ বাকি আছে। আমাদেরকে সেটা জেতার চেষ্টা করতে হবে এবং ফাইনালে খেলতে হবে।’

koeman
ছবি: টুইটার

ম্যাচের ৭৩তম মিনিটে পেনাল্টির আবেদন তুলেছিল সফরকারীরা। সুসো ফেলে দিয়েছিলেন জর্দি আলবাকে। কিন্তু রেফারি মাতেউ লাহোজ তাতে সাড়া না দিয়ে ফ্রি-কিকের সিদ্ধান্ত দেন। তার দৃষ্টিতে, আলবা ডি-বক্সের বাইরে ফাউলের শিকার হয়েছিলেন।

তবে সেসময় কেন রেফারি ভিএআরের সাহায্য নেননি তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বার্সেলোনার কোচ, ‘আমি মনে করি, মাতেউ লাহোজ বেশ ভালো করেছেন। তবে পেনাল্টির আবেদনের ওই ঘটনা নিয়ে অবশ্যই বিভ্রান্তি রয়েছে। কারণ, সবাই বলছে, এটা পেনাল্টি ছিল… আমি জানি না ভিএআরকে কেন কাজে লাগানো হয়নি।’

কোপা দেল রের রেকর্ড ৩০ বারের চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনার ফাইনালে ওঠার সম্ভাবনা একেবারে শেষ হয়ে যায়নি। আগামী ৪ মার্চ ন্যু ক্যাম্পে অনুষ্ঠিত হবে সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগ। সেদিন বাঁচা-মরার লড়াইয়ে নামতে হবে মেসি ও তার বাহিনীকে।

কিছুদিন আগে এই প্রতিযোগিতার শিরোপা জেতার আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ করা কোমান এখনই আশা ছাড়তে নারাজ, ‘২-০ গোলে পিছিয়ে থেকে (ফাইনালে ওঠার) কাজটা কঠিন। আমরা সুযোগ পেয়েছিলাম। কিন্তু তাদের রক্ষণভাগ ভালো ছিল। তাদের গোলরক্ষকও দুর্দান্ত খেলেছে। তবে নিজেদের মাঠে বার্সা যেকোনো কিছু করার ক্ষমতা রাখে।’

Comments

The Daily Star  | English

MV Abdullah passing through high-risk piracy area

Precautionary safety measures in place, Italian Navy frigate escorting it

33m ago