কঠিন উইকেটে রোহিতের আগ্রাসী সেঞ্চুরি, রাহানের ফিফটি

চেন্নাইতে দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনে খেলা হয়েছে ৮৮ ওভার। স্বাগতিকরা রান তুলেছে ৩০০ রান। উইকেট হারিয়েছে ছয়টি। উইকেটের বিচারে এই রান বেশ জুতসই।
Rohit Sharma
ছবি: বিসিসিআই টুইটার

প্রথম সেশনে ভারত করল ১০৬ রান, রোহিত শর্মা তখন একাই ৮০ রানে অপরাজিত। এই ব্যাটসম্যান এরকম আগ্রাসী ব্যাট চালিয়ে থামলেন দেড়শো পেরিয়ে। বিরাট কোহলি, চেতশ্বর পূজারার ব্যর্থতার দিনে আজিঙ্কা রাহানেও পেলেন রান। এই দুজনের ব্যাটে দিনটায় আরও দাপট দেখাতে পারত ভারত।  কিন্তু আলোচনার জন্ম দিয়ে একাদশে আসা মঈন আলি আর জ্যাক লিচের ঘূর্ণি খেলায় ফেরায়  ইংল্যান্ডকেও। যদিও প্রথম দিন থেকেই বিশাল বাঁক নিতে থাকা চিপকের বাইশ গজে ওভার প্রতি প্রায় সাড়ে তিন করে রান তুলে ভারত থাকছে বেশ স্বস্তিতে।

চেন্নাইতে দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনে খেলা হয়েছে ৮৮ ওভার।  স্বাগতিকরা রান তুলেছে ৩০০ রান। উইকেট হারিয়েছে ছয়টি। উইকেটের বিচারে এই রান বেশ জুতসই।  ৩৩ রান নিয়ে ক্রিজে আছেন রিশভ পান্ত, তার সঙ্গী অভিষিক্ত অক্ষর প্যাটেল।

একাদশে চারটি বদল নিয়ে নেমেছিল ইংল্যান্ড। টস হেরে জেমস অ্যান্ডারসন, জোফরা আর্চার না থাকায় স্টুয়ার্ট ব্রডের সঙ্গে  বোলিং শুরু করেন ওলি স্টোন। শুরুতে সাফল্য এনে দিয়েছেন তিনিই। ছন্দে থাকা ওপেনার শুভমান গিল ৩ বল খেলেই হয়েছেন এলবিডব্লিউ।

এরপর চেতশ্বর পূজারাকে এক পাশে রেখে শুরু হয় রোহিতের ঝড়। বিদ্যুৎ গতিতে রান বাড়াতে থাকেন তিনি। দ্বিতীয় উইকেটে ৮৪ রানের জুটিতে পূজারার অবদান কেবল ২১। বাঁহাতি স্পিনার জ্যাক লিচ এসে পূজারাকে আউট করে ভাঙ্গেন এই জুটি।

খানিক পরই মঈনের জাদু। শ্রীলঙ্কায় দুই টেস্ট আর ভারতে এসে প্রথম টেস্টে দারুণ বল করেছিলেন অফ স্পিনার ডম বেস। সেরা অবস্থায় থাকা এমন একজন স্পিনারকে এই টেস্টে বসিয়ে মঈনকে নামিয়ে আলোচনার জন্ম দেয় ইংল্যান্ড। জো রুটকে নিরাশ করেননি মঈন।

অফ স্টাম্পের বাইরে বল ফেলে অফ স্পিনারদের জন্য স্বপ্নের এক ডেলিভারিতে তিনি ভেতরে ঢুকিয়ে ছোবল হানেন কোহলি স্টাম্পে। স্তম্ভিত কোহলি বুঝতেই পারছিলেন না কি হয়েছে। রিপ্লে দেখে তাকে নিশ্চিত হতে হয়েছে বোল্ডের দৃশ্য।

অধিনায়ক ৫ বলে ০ করে বিদায়। তাতে চাপ-টাপ কিছুই নেননি রোহিত। তিনি ছিলেন তার মত। রাহানেকে নিয়ে জমে যায় জুটি। দারুণ এক অবস্থা নিয়ে চা-বিরতিতে যায় ভারত। রোহিত যেভাবে খেলছিলেন মনে হচ্ছিল প্রথম দিনেই ডাবল সেঞ্চুরি তুলে ছাড়বেন। চা-বিরতির পর বেশ খানিকটা সময় স্ট্রাইক নিয়ে খেলেছেন রাহানে। ফিফটিও হয়ে যায় তার।

রোহিত পেরিয়ে যান দেড়শোর ঘর। আউটও হয়েছেন রান বাড়ানোর তাড়ায়। লিচকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে ধরা পড়েন ডিপ মিড উইকেটে। ২৩১ বলের ইনিংসে ১৬১ রান করতে ১৮ চার আর ২ ছক্কা এসেছে রোহিতের ব্যাট থেকে।

রোহিতের বিদায়ের পর রাহানেও টেকেননি বেশি। তাকেও আরও একটি মায়াবী ডেলিভারিতে কাবু করেছেন মঈন। অফ স্টাম্পের বাইরে পড়া বল সুইপ করতে গিয়ে ব্যাটে নিতে পারেননি। দারুণ টার্ন করা বল কেড়ে নেয় ৬৭ করা রাহানের স্টাম্প।

পরে অনিয়মিত স্পিনে রবীচন্দ্রশন অশ্বিনকে ছাঁটেন রুট। দিনের বাকিটা সময় অক্ষর প্যাটেলকে নিয়ে পার করে দেন রিশভ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত:  ৮৮ ওভারে ৩০০/৬  (রোহিত ১৬১, গিল ০, পূজারা ২১, কোহলি ০, রাহানে ৬৭, পান্ত ৩৩*, অশ্বিন ১৩, অক্ষর ৫*; ব্রড ০/৩৭, স্টোন ১/৪২, লিচ ২/৭৮, স্টোকস ০/১৬, মঈন ২/১১২, রুট ১/১৫)

Comments

The Daily Star  | English

Death came draped in smoke

Around 11:30, there were murmurs of one death. By then, the fire, which had begun at 9:50, had been burning for over an hour.

58m ago