খেলা

দ্রুততম ৪০০ উইকেটে মুরালিধরনের পরেই অশ্বিন

আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে অশ্বিন খেলতে নেমেছিলেন ৩৯৪ উইকেট নিয়ে।
ASHWIN
ছবি: টুইটার

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম দিন থেকেই স্পিনারদের রাজত্ব। হবে না-ই বা কেন? উইকেট দুই হাত ভরে সাহায্য করেছে যে! বড় বড় টার্নের সঙ্গে আচমকা বাউন্স। আবার কখনো কখনো বল গেছে নিচু হয়ে। ব্যাটসম্যানদের জন্য রীতিমতো বিভীষিকাময় পরিস্থিতি। সেখানে রবীচন্দ্রন অশ্বিন ঘূর্ণি জাদুতে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করবেন, সেটা তো অনুমিতই!

আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে দিবা-রাত্রির টেস্টে অশ্বিন খেলতে নেমেছিলেন ৩৯৪ উইকেট নিয়ে। আগের দিন ২৬ রানে ৩ উইকেট দখল করেছিলেন ভারতের এই তারকা অফ স্পিনার। তাতে পৌঁছে গিয়েছিলেন মাইলফলকের খুব কাছে। ২৪ ঘণ্টা ঘুরতে না ঘুরতেই সেটা ছোঁয়া হয়ে গেল তার। বৃহস্পতিবার ম্যাচের দ্বিতীয় দিনেও ইংল্যান্ডকে ঘোল খাইয়ে ছাড়েন তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৮ রানে নেন ৪ উইকেট। তাতে অশ্বিন ৪০০ উইকেট স্পর্শ করে এগিয়ে গেছেন আরও সামনে।

ইতিহাসের দ্বিতীয় দ্রুততম বোলার হিসেবে টেস্টে ৪০০ উইকেট দখলের কৃতিত্ব দেখান অশ্বিন। তার লেগেছে মাত্র ৭৭ টেস্ট। এই তালিকায় তার উপরে আছেন কেবল শ্রীলঙ্কার সাবেক তারকা মুত্তিয়া মুরালিধরন। তিনি ৪০০ উইকেট শিকার করেছিলেন ৭২ টেস্টে। ক্রিকেটের সবচেয়ে কুলীন সংস্করণে সবচেয়ে বেশি ৮০০ উইকেটের মালিকও এই কিংবদন্তি।

২৪.৯৫ গড়ে অশ্বিনের উইকেটসংখ্যা এখন ৪০১। তিনি ইনিংসে ৫ উইকেট নিয়েছেন ২৯ বার, ম্যাচে ১০ উইকেট দখল করেছেন সাতবার। আহমেদাবাদ টেস্টে সবমিলিয়ে ৭ ইংলিশ ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফেরাতে তার খরচা ৭৪ রান।

৩৪ বছর বয়সী অশ্বিনের আগে ভারতের হয়ে টেস্টে ৪০০ কিংবা এর চেয়ে বেশি উইকেট নিয়েছেন কেবল তিনজন। তারা হলেন অনিল কুম্বলে (১৩২ টেস্টে ৬১৯ উইকেট), কপিল দেব (১৩১ টেস্টে ৪৩৪ উইকেট) ও হরভজন সিং (১০৩ টেস্টে ৪১৭ উইকেট)। পাশাপাশি বিশ্বের ষষ্ঠ স্পিনার হিসেবে ৪০০ উইকেটের ক্লাবে জায়গা করে নিয়েছেন অশ্বিন। মুরালিধরন, কুম্বলে ও হরভজনের সঙ্গে ওই তালিকায় আছেন অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি শেন ওয়ার্ন (১৪৫ টেস্টে ৭০৮ উইকেট) ও শ্রীলঙ্কার রঙ্গনা হেরাথ (৯৩ টেস্টে ৪৩৩ উইকেট)।

অশ্বিনের স্মরণীয় দিনে ভারতও পেয়েছে স্মরণীয় জয়। মাত্র দুদিনের মধ্যে ইংল্যান্ডকে ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে চার ম্যাচের সিরিজে স্বাগতিকরা এগিয়ে গেছে ২-১ ব্যবধানে। দুই ইনিংস মিলিয়ে ৭০ রানে ১১ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন আক্সার প্যাটেল।

Comments