রোনালদোর মাইলফলকের ম্যাচে জয়ে ফিরল জুভেন্টাস

শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে টিকে থাকল আন্দ্রেয়া পিরলোর শিষ্যরা।
ronaldo cristiano
ছবি: টুইটার

ফের হোঁচট খাওয়ার সম্ভাবনা জেগেছিল জুভেন্টাসের। রক্ষণে জোর দিয়ে ইতালিয়ান সিরি আর বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের পরীক্ষা নিচ্ছিল দুর্বল স্পেজিয়া। তবে বিরতির পর আর তুরিনের বুড়িদের তারকাসমৃদ্ধ আক্রমণভাগকে থামাতে পারেনি দলটি। জয়ে ফিরে শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে টিকে থাকল আন্দ্রেয়া পিরলোর শিষ্যরা।

মঙ্গলবার রাতে আলিয়াঞ্জ স্টেডিয়ামে ৩-০ গোলে স্পেজিয়াকে উড়িয়ে দিয়েছে জুভরা। ম্যাচের দুই-তৃতীয়াংশ পেরিয়ে যাওয়ার পর দলটির পক্ষে গোলের সূচনা করেন আলভারো মোরাতা। অল্প সময়ের ব্যবধানে জাল খুঁজে নেন ফেদেরিকো চিয়েসা। শেষ বাঁশি বাজার কিছুক্ষণ আগে লক্ষ্যভেদ করেন ক্যারিয়ারের (যুব ও মূল দল মিলিয়ে) ৬০০তম লিগ ম্যাচ খেলতে নামা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো।

লিগে সাম্প্রতিক সময়ে উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে জুভেন্টাস। আগের ম্যাচে তাদেরকে রুখে দিয়েছিল হেলাস ভেরোনা। আর সবশেষ চার ম্যাচে এটি তাদের দ্বিতীয় জয়। নাপোলির বিপক্ষে অন্য ম্যাচে তাদের সঙ্গী হয়েছিল হার। এই জয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দুই দলের সঙ্গে ব্যবধান কমিয়েছেন রোনালদোরা।

বল দখলে রাখলেও প্রতিপক্ষের গোলমুখে গিয়ে বারবার খেই হারাচ্ছিল জুভেন্টাস। তাদের কপালে জমতে থাকা হতাশার কালো মেঘ সরিয়ে দেন মোরাতা। বদলি হিসেবে নামার পর ৬২তম মিনিটে প্রথম ছোঁয়াতে জাল খুঁজে নেন এই স্প্যানিশ স্ট্রাইকার। প্রথমে অবশ্য লাইন্সম্যান অফসাইডের পতাকা তুলেছিলেন। পরে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে গোলের বাঁশি বাজান রেফারি। নয় মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন চিয়েসা। তার প্রথম শট স্পেজিয়ার গোলরক্ষক রুখে দেওয়ার পর ফিরতি শটে আলগা বল জালে পাঠান এই ইতালিয়ান উইঙ্গার। দুটি গোলেই গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন ফেদেরিকো বার্নারদেস্কি।

ronaldo 600
ছবি: টুইটার

৮৯তম মিনিটে স্বাগতিকদের বড় জয় নিশ্চিত করেন ৩৫ বছর বয়সী রোনালদো। রদ্রিগো বেন্তানকুরের আড়াআড়ি পাস প্রথম ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডি-বক্সের প্রান্ত থেকে বাঁ পায়ের শটে গোল করেন তিনি। চলতি লিগে এটি তার ২০তম গোল। পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী এই পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড আছেন সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকার শীর্ষে।

ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগে টানা ১২ মৌসুম ২০ বা তার চেয়ে বেশি গোলের কীর্তিও গড়েছেন রোনালদো। সবমিলিয়ে ১৩ মৌসুমে লিগে অন্তত ২০ গোল করা প্রথম ফুটবলারও তিনি। ২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত সিরি আতে ৪৮ ম্যাচে ৪৮ গোল করার কৃতিত্ব দেখিয়েছেন তিনি।

লিগে ৬০০তম ম্যাচ স্মরণীয় করে রাখা রোনালদোর ক্যারিয়ারের শুরুটা হয়েছিল স্বদেশি দল স্পোর্তিংয়ে। ক্লাবটির যুব দল ও মূল দল মিলিয়ে ২৭ ম্যাচে ৩ গোল করেছিলেন তিনি। এরপর ইংলিশ পরাশক্তি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ১৯৬ ম্যাচে ৮৪ ও সফলতম স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ২৯২ ম্যাচে ৩১১ গোল করেন তিনি। ২০১৮ সালে জুভেন্টাসে যোগ দেওয়ার পর ৮৫ ম্যাচে ৭২ গোল রয়েছে তার নামের পাশে।

ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে পেনাল্টি পেলেও ব্যবধান কমাতে পারেনি স্পেজিয়া। আন্দ্রেই গালাবিনোভের দুর্বল শট রুখে দেন গোলরক্ষক ভোইচেখ স্ট্যান্সনি। স্বস্তির জয়ে ২৪ ম্যাচে জুভদের পয়েন্ট বেড়ে হয়েছে ৪৯। সমান ম্যাচ খেলেছে দুই শহর প্রতিদ্বন্দ্বী ইন্টার মিলান আর এসি মিলানও। ইন্টার ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে তালিকার সবার উপরে। চার পয়েন্ট পিছিয়ে দুইয়ে অবস্থান করছে এসি।

Comments