মিয়ানমারে এক দিনে নিহত ১৩, সেনাশাসনের বিরুদ্ধে ‘বিপ্লবের ডাক’

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের পর ক্ষমতাচ্যুত হওয়া এক দল আইনপ্রণেতা ও রাজনীতিবিদ সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে ‘বিপ্লব’ চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।
Mahn Win Khaing Than.jpg-2.jpg
মিয়ানমারে স্বঘোষিত সরকারে প্রধান হিসেবে মান উইন খাইং থান আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির দাবি করছেন। ছবি: সংগৃহীত

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের পর ক্ষমতাচ্যুত হওয়া এক দল আইনপ্রণেতা ও রাজনীতিবিদ সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে ‘বিপ্লব’ চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

আজ রোববার বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অং সান সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) কয়েকজন পদ হারানো সংসদ সদস্য গোপনে একটি দল গঠন করেছেন। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধেই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

‘কমিটি ফর রিপ্রেজেন্টিং পিডাংসু হাল্টাও’ (সিআরপিএইচ) নামের দলটি মিয়ানমারের সামরিক সরকারকে মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে নিজেদের ‘ন্যায়সঙ্গত সরকার’ হিসেবে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবি করছে।

ওই দলের প্রধান হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিয়েছেন মান উইন খাইং থান নামে এক সাবেক আইনপ্রণেতা।

বিবিসি জানায়, আত্মগোপনে থেকে স্থানীয় সময় গতকাল শনিবার তিনি ফেসবুকে তার প্রথম ভাষণ দেন।

মান উইন খাইং থান বলেন, ‘এটি জাতির সবচেয়ে অন্ধকার মুহূর্ত এবং ভোর হতে খুব বেশি দেরি নেই। এখন আমাদের নাগরিকদের অন্ধকার সময়ের বিরুদ্ধে প্রতিরোধের পরীক্ষা দেওয়ার সময়।’

তিনি আরও বলেন, ‘একটি ফেডারেল গণতন্ত্র গঠনের জন্য যে সব জাতিগোষ্ঠী ভাইয়েরা বহু দশক ধরে একনায়কতন্ত্রের নিপীড়ন ভোগ করে চলেছেন... এই বিপ্লবই আমাদের জন্য সুযোগ, একসঙ্গে প্রচেষ্টা চালানোর।’

ভাষণে তিনি বলেন, ‘অতীতে আমাদের মতপার্থক্য সত্ত্বেও, এখন অবশ্যই স্বৈরশাসনের অবসান ঘটাতে আমাদের হাতে হাত রেখে কাজ করতে হবে।’

তবে ক্ষমতাসীন সেনাবাহিনী সিআরপিএইচকে একটি অবৈধ গোষ্ঠী হিসেবে উল্লেখ করে সতর্কবার্তায় বলেছে যে, কেউ যদি তাদেরকে সহযোগিতা করে, তবে তা রাষ্ট্রদ্রোহিতা বলে গণ্য করা হবে।

রয়টার্স জানিয়েছে, গতকাল মিয়ানমারের কয়েকটি শহরে বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের গুলিতে ১৩ জন নিহত হয়েছেন।

অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিকাল প্রিজনারস (এএপিপি) জানিয়েছে, গত ১ ফেব্রুয়ারি সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে দেশটিতে ৮০ জনেরও বেশি বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়েছে এবং ২ হাজার ১০০ মানুষকে নিরাপত্তা বাহিনী আটক করেছে।

আরও পড়ুন:

অভ্যুত্থান মেনে না নেওয়ার আহ্বান সু চির

যে কারণে সু চিকে সরিয়ে ক্ষমতা নিলো সেনাবাহিনী

‘সু চি সরকারের বেশিরভাগ ক্ষমতা সামরিক বাহিনীর হাতেই ছিল’

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের নিন্দায় বিশ্ব সম্প্রদায়

সেনা অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে মিয়ানমারের ৭০ হাসপাতালে কর্মবিরতি

মিয়ানমারে ফেসবুক বন্ধ

মিয়ানমারে সেনাবিরোধী ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ

মিয়ানমারে এবার ইন্টারনেট বন্ধ

অভ্যুত্থানের প্রতিবাদ, সু চির মুক্তির দাবিতে মিয়ানমারে বিক্ষোভ

মিয়ানমারে বিক্ষোভ দমনে জলকামান, গ্রেপ্তার

মিয়ানমারে বিক্ষোভে গুলিবিদ্ধ তরুণী আইসিইউতে

মিয়ানমারে অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে টোকিওতে বিক্ষোভ

মিয়ানমারে অভ্যুত্থান: বিক্ষোভকারীদের ২০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের হুঁশিয়ারি

মিয়ানমারে ইন্টারনেট বন্ধের প্রতিবাদে সাইবার যুদ্ধ, সরকারি ওয়েবসাইট হ্যাক

মিয়ানমারে সেনাবিরোধী মিছিলে পুলিশের গুলি, নিহত ২

ধর্মঘটে অচল মিয়ানমার

মিয়ানমারে অভ্যুত্থান: সামরিক বাহিনীর হুমকি উপেক্ষা করে বিক্ষোভ

মিয়ানমারে সেনাবিরোধী বিক্ষোভে পুলিশের গুলি, নিহত ৭

‘কত লাশ দরকার’

মিয়ানমারে সেনাবিরোধী বিক্ষোভে পুলিশের গুলি, আজ নিহত ৯

মিয়ানমারে বিক্ষোভ: একদিনে নিহত ৩৮, আন্দোলন থামছে না

মিয়ানমারে সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে কূটনীতিকদের বিদ্রোহ

মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে নিহত কমপক্ষে ১৮

আজ মিয়ানমারে সেনাবিরোধী বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে নিহত ৭

মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে আরও ৫ বিক্ষোভকারী নিহত

Comments

The Daily Star  | English

C&F staff halt work at 4 container depots

Staffers of clearing and forwarding (C&F) agents stopped working at four leading inland container depots (ICDs) in the port city since the early hours today following a dispute with customs officials, which eventually led to a clash between C&F staff and staff of an ICD

12m ago