চকরিয়ায় সুদের টাকা আদায়ে গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ

কক্সবাজারের চকরিয়ায় সুদের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় এক গৃহবধূকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।
Coxsbazar_DS_Map.jpg
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

কক্সবাজারের চকরিয়ায় সুদের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় এক গৃহবধূকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্তের বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ এবং ওই গৃহবধূকে পুলিশি হেফাজতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের মোরাপাড়ার হাপানিয়াকাটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গতকাল দুপুরে এ ঘটনা ঘটে এবং আজ বুধবার সকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। এরপর অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তের বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ।

বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও আট নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য নিয়াজুল ইসলাম বাদল দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘কয়েক মাস আগে ওই নারী তার দিনমজুর স্বামীর চিকিৎসার জন্য অভিযুক্ত শওকত ওসমানের কাছ থেকে চার হাজার টাকা সুদে ধার নেন। ইতোমধ্যে ওই নারী সুদ ও আসলসহ মোট আট হাজার টাকা পরিশোধও করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরের দিকে অভিযুক্ত যুবক আরও দুই হাজার টাকা দাবি করেন। পরে ওই নারী আগামী বৃহস্পতিবার (১৮ই মার্চ) তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে ও তা মানতে রাজি হননি অভিযুক্ত যুবক। এ নিয়ে দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ওই যুবক ভুক্তভোগীকে গাছের সঙ্গে শাড়ি দিয়ে বেঁধে মারধর ও নির্যাতন চালায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘গতকাল দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে। কিন্তু, ওই নারী এ বিষয়ে কাউকে কিছু না বলায় বিষয়টি কেউ জানতে পারেননি। পরে আজ বুধবার সকালের দিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি ভাইরাল হলে তা জানাজানি হয়। পুলিশকে জানানোর পর পুলিশ ওই যুবকের বাবাকে আটক করে নিয়ে যায়।’

সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, ‘অভিযুক্ত শওকত ওসমান একটি গাছের সঙ্গে শাড়ির আঁচল দিয়ে বেঁধে রাখেন ওই নারীকে। এসময় ভুক্তভোগী তার বাঁধন খুলে দিতে বলে। কিন্তু, অভিযুক্ত ব্যক্তি খুলে না দিয়ে কিল-ঘুষি মারতে থাকে তাকে। এক পর্যায়ে ওই নারীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করা হয় এবং চুলের মুটি ধরে টান মারতে থাকেন। এছাড়াও, চুলের মুটি গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়। স্থানীয় কয়েকজন নারী ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করতে গেলে তাদেরও ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়।’

বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জালাল আহমদ সিকদার বলেন, ‘ঘটনাটি জানার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার ওসিকে  জানানো হয়েছে। আমি চাই এ ঘটনার একটি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হোক।’

ওই নারীর বরাত দিয়ে হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির কর্মকর্তা মো. মাহাতাবুর রহমান বলেন, ‘গত কয়েক মাস আগে শওকত ওসমানের কাছ থেকে সুদের ওপর চার হাজার টাকা ধার নেন ভুক্তভোগী। ইতোমধ্যে আট হাজার টাকা পরিশোধও করেছেন। আরও দুই হাজার টাকা দাবি করে শওকত ওই গৃহবধূকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করে।’

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেখার পরপরই  ঘটনাস্থলে যাই। অভিযুক্ত শওকতকে না পাওয়ায় তার বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।’

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

Comments

The Daily Star  | English

New School Curriculum: Implementation limps along

One and a half years after it was launched, implementation of the new curriculum at schools is still in a shambles as the authorities are yet to finalise a method of evaluating the students.

1h ago